অর্থনীতিতে একুশে পদক পেলেন মির্জা আব্দুল জলিল

অর্থনীতিতে অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা একুশে পদক-২০২১ পেয়েছেন ড. মির্জা আব্দুল জলিল। শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে ...

অর্থনীতিতে একুশে পদক পেলেন মির্জা আব্দুল জলিল
অর্থনীতিতে অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা একুশে পদক-২০২১ পেয়েছেন ড. মির্জা আব্দুল জলিল।

শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বরেণ্য এ ব্যক্তির হাতে সম্মাননা পদক তুলে দেন।

পাবনা জেলার রাজনীতিবিদ ও বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব এবং প্রতিমন্ত্রী পদমর্যাদায় প্রাইভেটাইজেশন কমিশনের চেয়ারম্যান ছিলেন ড. মির্জা আব্দুল জলিল।

১৯৩৭ সালের ১৯শে মার্চ পাবনা জেলার বেড়া উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন তিনি। বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৬২ সালে পশুচিকিৎসা ও পশুপালন বিষয়ে বিএসসি এবং ১৯৬৪ সালে এমএসসি ডিগ্রি অর্জন করেন ড. মির্জা আব্দুল জলিল। ১৯৭৩-১৯৭৭ সালে অস্ট্রেলিয়ার সিডনি থেকে তিনি পশুপুষ্টির ওপর পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন।

রাজনৈতিক জীবনে ড. মির্জা আব্দুল জলিল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য ও বাংলাদেশ কৃষক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সভাপতি ছিলেন।

১৯৬৭ সালে পশুসম্পদ অধিদফতরে গবেষণা কর্মকর্তা হিসেবে যোগ দিয়ে কর্মজীবন শুরু করেন। এরপর রাজশাহী বিভাগীয় পরিচালক, পশুসম্পদ অধিদফতরে পরিচালক, বাংলাদেশ পশুসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউটের পরিচালক, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের সদস্য, অতিরিক্ত সচিব পদ মর্যাদায় বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশনের চেয়ারম্যান, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৪ সালে তিনি অবসরে যান।

১৯৯৬ সালে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের চেয়ারম্যান নিযুক্ত হয়ে পাঁচ বছর দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৯ সালে প্রতিমন্ত্রীর সমমর্যাদায় প্রাইভেটাইজেশন কমিশনের চেয়ারম্যান নিযুক্ত হয়ে পাঁচ বছর দায়িত্ব পালন করেন।

ব্রেকিংনিউজ/বিবি/এম