আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধের ফেরিওয়ালা সেজেছে : আলাল

বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেছেন, ‘আজকে আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধের ফেরিওয়ালা সেজেছে। অথচ তারা শরণার্থী মুক্তিযোদ্ধার দল।’ শুক্রবার (১৯ ফেব্রয়ারি) ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটিতে তাঁতী দলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, ‘আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধের কথা বলতে বলতে অজ্ঞান হয়ে যায়। দেখবেন হকাররা বাড়ির নিচ দিয়ে সাজিতে করে মাছ এবং সবজি নিয়ে ফেরি করে বিক্রি করে। আর আওয়ামী লীগ এখন সাজি কাঁধে নিয়ে মুক্তিযুদ্ধের ফেরিওয়ালা সেজেছে।’ যুবদলের সাবেক সভাপতি বলেন, \'বিএনপি মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিও নয়, বিপক্ষেরও নয়। বিএনপি হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের মূল শক্তি। দেখবেন- যারা গ্যালারিতে বসে খেলা দেখে, তারা পক্ষে-বিপক্ষের সমর্থক হয়। আওয়ামী লীগ শরণার্থী মুক্তিযোদ্ধার দল। এজন্য তারা পক্ষের শক্তি বলে দাবি করে।’ আলাল বলেন, \'জিয়াউর রহমানের অবদান মানুষের হৃদয়ে। তার পক্ষে কোনো যুক্তি দেখানো লাগে না। আদালতে আসামিপক্ষ যুক্তি দেখায় যে আমরা অপরাধ করিনি। তাহলে জিয়াউর রহমান কী কী করেছে, তা আমরা বলে বেড়াবো কেন? তার অবদান ইতিহাসের পাতায় লেখা আছে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের দলিলপত্র যেটা সরকার প্রকাশ করে সেখানেই দশম খন্ডের ৫০৩ পৃষ্ঠা থেকে ৪৮ পৃষ্ঠা পর্যন্ত জিয়ার অবদানের কথা লেখা রয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘আওয়ামী লীগ আজকে যত ভালো অবস্থানেই থাকুক না কেন, বিরোধীদের ওপর অত্যাচার-নিপীড়ন করুক। একটা কথা মনে রাখবেন, সবসময় বিজয় গৌরবের হয় না। আর সব পরাজয়ও লজ্জার নয়। যদি তাই হতো- তবে নবাব সিরাজউদ্দৌলার পলাশীর যুদ্ধের পরাজয় মানুষ এতোদিন ধরে স্মরণ করত না। আর বিজয়ী মীরজাফরদের ঘৃণা করত না।’ টিকা নিয়েও আওয়ামী লীগ রাজনীতি করছে মন্তব্য করে আলাল বলেন, ‘একজনকে টিকা দেয়। আর ২০০ জন পাশে দাঁড়িয়ে থাকে ছবি তোলার জন্য। এমনভাবে টিকা দেয়, মনে হয় যেন কোরবানির গরু চেপে ধরেছে। ওটাকে জবাই করা হচ্ছে।’ তাঁতী দলের সভাপতি আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আহমেদ আযম খান, কেন্দ্রীয় নেতা মীর সরাফৎ আলী সপু, আবদুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, আব্দুর রহিম, ড. কাজী মনিরুজ্জামান মনির প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। কেএইচ/এএএইচ/এএসএম

আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধের ফেরিওয়ালা সেজেছে : আলাল

বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেছেন, ‘আজকে আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধের ফেরিওয়ালা সেজেছে। অথচ তারা শরণার্থী মুক্তিযোদ্ধার দল।’

শুক্রবার (১৯ ফেব্রয়ারি) ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটিতে তাঁতী দলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, ‘আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধের কথা বলতে বলতে অজ্ঞান হয়ে যায়। দেখবেন হকাররা বাড়ির নিচ দিয়ে সাজিতে করে মাছ এবং সবজি নিয়ে ফেরি করে বিক্রি করে। আর আওয়ামী লীগ এখন সাজি কাঁধে নিয়ে মুক্তিযুদ্ধের ফেরিওয়ালা সেজেছে।’

যুবদলের সাবেক সভাপতি বলেন, 'বিএনপি মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিও নয়, বিপক্ষেরও নয়। বিএনপি হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের মূল শক্তি। দেখবেন- যারা গ্যালারিতে বসে খেলা দেখে, তারা পক্ষে-বিপক্ষের সমর্থক হয়। আওয়ামী লীগ শরণার্থী মুক্তিযোদ্ধার দল। এজন্য তারা পক্ষের শক্তি বলে দাবি করে।’

আলাল বলেন, 'জিয়াউর রহমানের অবদান মানুষের হৃদয়ে। তার পক্ষে কোনো যুক্তি দেখানো লাগে না। আদালতে আসামিপক্ষ যুক্তি দেখায় যে আমরা অপরাধ করিনি। তাহলে জিয়াউর রহমান কী কী করেছে, তা আমরা বলে বেড়াবো কেন? তার অবদান ইতিহাসের পাতায় লেখা আছে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের দলিলপত্র যেটা সরকার প্রকাশ করে সেখানেই দশম খন্ডের ৫০৩ পৃষ্ঠা থেকে ৪৮ পৃষ্ঠা পর্যন্ত জিয়ার অবদানের কথা লেখা রয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আওয়ামী লীগ আজকে যত ভালো অবস্থানেই থাকুক না কেন, বিরোধীদের ওপর অত্যাচার-নিপীড়ন করুক। একটা কথা মনে রাখবেন, সবসময় বিজয় গৌরবের হয় না। আর সব পরাজয়ও লজ্জার নয়। যদি তাই হতো- তবে নবাব সিরাজউদ্দৌলার পলাশীর যুদ্ধের পরাজয় মানুষ এতোদিন ধরে স্মরণ করত না। আর বিজয়ী মীরজাফরদের ঘৃণা করত না।’

টিকা নিয়েও আওয়ামী লীগ রাজনীতি করছে মন্তব্য করে আলাল বলেন, ‘একজনকে টিকা দেয়। আর ২০০ জন পাশে দাঁড়িয়ে থাকে ছবি তোলার জন্য। এমনভাবে টিকা দেয়, মনে হয় যেন কোরবানির গরু চেপে ধরেছে। ওটাকে জবাই করা হচ্ছে।’

তাঁতী দলের সভাপতি আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আহমেদ আযম খান, কেন্দ্রীয় নেতা মীর সরাফৎ আলী সপু, আবদুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, আব্দুর রহিম, ড. কাজী মনিরুজ্জামান মনির প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কেএইচ/এএএইচ/এএসএম