আনসার আল ইসলামের চার সদস্য গ্রেপ্তার

রাজধানীর মিরপুরের ভাসানটেক ও গাজীপুরের টঙ্গী থেকে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলাম এর এক নারী সদস্যসহ চার সক্রিয় সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে

আনসার আল ইসলামের চার সদস্য গ্রেপ্তার

রাজধানীর মিরপুরের ভাসানটেক ও গাজীপুরের টঙ্গী থেকে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন ‘আনসার আল ইসলাম’ এর এক নারী সদস্যসহ চার সক্রিয় সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।   

শনিবার বিকালে র‌্যাব-৪ থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গ্রেপ্তার চারজন হলেন ময়মনসিংহের মাহবুব আলম, কুমিল্লার আমিরুল ইসলাম, কিশোরগঞ্জের মামুন মিয়া ও বরিশালের শাহিদা বেগম।

গ্রেপ্তারকৃতরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে র‌্যাবকে জানিয়েছেন, তারা নিষিদ্ধঘোষিত সংগঠন ‘আনসার আল ইসলাম’ এর সক্রিয় সদস্য। তাদের কাছ থেকে নিষিদ্ধ সংগঠনটির বিভিন্ন ধরনের ১২টি বই, ছয়টি মোবাইল সেট এবং ১১৫টি জঙ্গিবাদী আলোচনার প্রমাণ জব্দ করা হয়।

গ্রেপ্তার মাহবুব আলম র‌্যাবকে জানিয়েছেন, তিনি এইচএসসি পাস করে একটি বেসরকারি নিরাপত্তা কোম্পানিতে গার্ড হিসেবে কাজ করার পাশাপাশি মধু ও দুধের ব্যবসা করে আসছেন। গত চার বছর ধরে ‘আনসার আল ইসলাম’এর সক্রিয় সদস্য হিসেবে অন্য সদস্যদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগের পাশাপাশি অনলাইনে বিভিন্ন উগ্রবাদী মতবাদ প্রচার করে আসছিলেন।  

টঙ্গী থেকে গ্রেপ্তার আমিরুল ইসলাম ও মামুন মিয়া র‌্যাবকে জানিয়েছেন, তারা জুয়েলারি ব্যবসার কারিগর হিসেবে কাজ করতেন। এক বছর আগে জঙ্গি সংগঠনের সদস্য হন। তারা অনলাইনে বিভিন্ন উগ্রবাদী লেখালেখি এবং ভিডিও প্রচার করে আসছিলেন। মামুন গত চার বছর ধরে ‘আনসার আল ইসলাম’এর সঙ্গে জড়িত। অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে গোপন বৈঠকের পাশাপাশি চাঁদা ও নতুন সদস্য সংগ্রহ করে আসছিলেন তিনি।

র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার শাহিদা বেগম জানিয়েছেন, তিনি পেশায় একজন ছাত্রী। সংগঠনের নতুন নারী সদস্য সংগ্রহের দায়িত্ব পালন করতেন। এছাড়া তিনি তার পরিবারের সদস্যদের থেকে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গত ছয় মাস আগে একই উগ্রবাদী মতাদর্শে বিশ্বাসী মামুন মিয়ার সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে উগ্রবাদী কাজ চালিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করেন।

গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের পাশাপাশি অন্যান্য সহচরদের গ্রেপ্তারের জন্য গোয়েন্দা নজরদারি চালিয়ে যাচ্ছে র‌্যাব।