একই দিনে পহেলা ফাল্গুন ও ভালোবাসা দিবস

বাংলা বর্ষপঞ্জিতে সংশোধনের কারণে এখন থেকে ফাল্গুন মাসের প্রথম দিন ও ভালোবাসা দিবস একই দিনে পড়বে। শীত প্রায় শেষের দিকে। গাছে গাছে পলাশ ও আমের মুকুলের আগমনে প্রকৃতি বলছে, বসন্ত এসে গেছে। গত বারের মতো এবারও বাঙালি বসন্ত উৎযাপন করবে ১৪ ফেব্রুয়ারি। গত বছরেও ভালোবাসা দিবসের দিনেই পালিত হয়েছিল পহেলা ফাল্গুন।

একই দিনে পহেলা ফাল্গুন ও ভালোবাসা দিবস
ছবিঃ সংগৃহীত

দেশের ঐতিহাসিক বিভিন্ন দিবসের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে তৈরি করা হয়েছে নতুন বাংলা বর্ষপঞ্জি। নতুন এই বর্ষপঞ্জিতে জাতীয় দিবসের বাংলা তারিখ এখন থেকে একই থাকবে প্রতি বছর।

সংশোধিত বর্ষপঞ্জি অনুযায়ী, বৈশাখ থেকে আশ্বিন পর্যন্ত প্রথম ছয় মাস ৩১ দিন, কার্তিক থেকে চৈত্র মাস ৩০ দিন, মাঝে শুধু ফাল্গুন মাস ২৯ দিন ধরে গণনা করা হবে। তবে, গ্রেগরীয় পঞ্জিকার মতো অধিবর্ষে ফাল্গুন মাস ২৯ দিনের পরিবর্তে ৩০ দিন গণনা করা হবে। সে হিসেবে পহেলা বৈশাখ আগের মতোই ১৪ই এপ্রিলই উদযাপন হবে।

এছাড়াও দেশের ঐতিহাসিক দিবসগুলো যেমন: ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২৬শে মার্চ, ১৬ই ডিসেম্বরসহ নজরুল ও রবীন্দ্র জন্মজয়ন্তীর বাংলা তারিখ সংশোধন করা হয়েছে।

পঞ্জিকার এই সংশোধনের ফলে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস একুশে ফেব্রুয়ারির প্রতিসঙ্গী বাংলা তারিখ হবে ৮ ফাল্গুন, যা ১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারিতেও ছিলো ৮ ফাল্গুন। একইভাবে অন্যান্য দিবসও বাংলা ও ইংরেজি তারিখের সঙ্গে মিল রেখে সংশোধন করা হয়েছে বাংলা বর্ষপঞ্জি। অর্থাৎ জাতীয় দিবসগুলো বাংলা যে তারিখ ছিলো, সেই তারিখে স্থির করার জন্য বাংলা বর্ষপঞ্জিতে এই সংশোধন।

বাংলা বর্ষপঞ্জি সংশোধনের কাজ করেছে বাংলা একাডেমির গবেষণা, সংকলন এবং অভিধান ও বিশ্বকোষ বিভাগ।