করোনা টিকার অনলাইন আবেদনে তেমন সাড়া নেই

সজীব আকবর, ঢাকাঃ করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে সুরক্ষা দিতে ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে গণ টিকাদান শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। গণ টিকাদানের শুরুতেই টিকা পাবেন সম্মুখ সারিতে থাকা বিভিন্ন পেশার মানুষেরা। তবে, তার আগে টিকা পেতে সবাইকে অনলাইনে নিবন্ধন করতে হবে। এজন্য ‘সুরক্ষা অ্যাপ’ নামে একটি অ্যাপ তৈরি করেছে সরকার। কিন্তু টিকা নিতে আগ্রহীদের অনলাইন নিবন্ধনে তেমন সাড়া নেই

করোনা টিকার অনলাইন আবেদনে তেমন সাড়া নেই
ছবি প্রতীকী

দেশে প্রথম মাসেই ৬০ লাখ মানুষকে সরকার  করোনার টিকা প্রদান করতে চেয়েছিল কিন্তু সংশোধন করে তা কমিয়ে ৩৫ লাখ করা হয়েছে বলে জানা গেছে। প্রথম মাসে যারা টিকা পাবেন, তারা তৃতীয় মাসে গিয়ে আবার দ্বিতীয় ডোজ পাবেন।

গতকাক বুধবার (৩ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত টিকা পেতে সম্মুখ সারিতে থাকা বিভিন্ন শ্রেণি-পেশারসহ ৮০ হাজার মানুষ নিবন্ধন করেছেন বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক ডা. নাসিমা সুলতানা।

যা সংশোধিত ৩৫ লাখ ডোজের লক্ষ্যমাত্রার মাত্র ২ দশমিক ২৯ শতাংশ।
এদিকে, ২০২১ সালের মাঝামাঝি নাগাদ কোভাক্স প্রোগ্রামের আওতায় দেশে ১ কোটি ২৮ লাখ মানুষ ভ্যাকসিনের ডোজ গ্রহণ করবে বলে আশা করা হচ্ছে।

অনলাইনে নিবন্ধন কম হওয়ার বিষয়ে ডা. নাসিমা সুলতানা বলেছেন, দেশে করোনাভাইরাসে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা কমেছে। এই কারণে হয়তো অনেকে মনে করতে পারেন যে, তার আর করোনা হবে না। এই জন্যে টিকা নিতে আগ্রহী হচ্ছেন না। তবে সবাইকে টিকা নেওয়ার জন্য আমরা উৎসাহিত করছি।

যারা অনলাইনে নিবন্ধন করতে পারছেন না, তাদের বাড়িতে গিয়ে স্বাস্থ্যকর্মীরা টিকার নিবন্ধনে সহায়তা করবেন বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের এই কর্মকর্তা।

আরও পড়ুনঃ

করোনার টিকার জন্য অনলাইনে নিবন্ধন করার পদ্ধতি