কৃষিতে ইউটিউবার সজীব অধিকারীর বাজিমাত

সজীব অধিকরী। গানের জগতের মানুষ।কিন্তু বাজিমাত করেছেন কৃষিতে। ইউটিউবে কৃষি বিষয়ক ভিডিয়ো আপলোড করে পেয়েছেন সফলতা।

কৃষিতে ইউটিউবার সজীব অধিকারীর বাজিমাত

সজীব অধিকরী। গানের জগতের মানুষ।কিন্তু বাজিমাত করেছেন কৃষিতে। ইউটিউবে কৃষি বিষয়ক ভিডিয়ো আপলোড করে পেয়েছেন সফলতা। তার ইউটিউব চ্যানেলের বয়স বছর পার না হতেই সাবস্ক্রাইবার ৪০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। কৃষি আর ইউটিউবেই সাফল্যের সিঁড়ি ডিঙিয়ে এগিয়ে চলেছেন তিনি।আর এগিয়ে যাচ্ছে তার ইউটিউব চ্যানেল বিচিত্র যশোর।

দেশের অন্যতম সম্ভাবনাময় খাত কৃষি। কিন্তু কৃষিতে আধুনিক প্রযুক্তির সমন্বয় এখনো সর্বত্র পৌছায়নি। সেটিই ইউটিউবের মাধ্যমে মানুষের কাছে পৌছে দিতে সজীব প্রাণান্তকার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। যশোর শহরের প্রাণকেন্দ্র সমবায় ব্যাংক মার্কেটের ৩য় তলার ব্যালকনিতে তার কৃষি কর্ণারটি মানুষের প্রশংসার জোয়ারে ভাসছে। তার কৃষি কর্নারে রয়েছে দেশী বিদেশী সবজির সমাহার।

তার কৃষি কর্নারে চাষ হচ্ছে ফুল কপি, স্কোয়াশ, বাটি শাক, ব্লাক টমাটো, চায়নিজ ক্যাবেজ (পাতা কপি সদৃশ সবজি), অস্ট্রেলিয়ান রসুন, বিট রুট, লেটুস পাতা, বিদেশী কলমী, ব্রোকলী, গাজর, পু্ইঁশাক, বেগুন, শাপলা আছে তিন ধরণের, রজনীগন্ধা ফুল, গ্লাডিওলাস ফুল, লাল ডাটা, লাল শাক, লাল এবং বেগুনী পাতা কপি, বারমাসি টমাটো, ঘিমা কলমী, চার রঙের বিদেশী ঝাল যার নাম ওমেরা চিলির (অর্নামেন্টাল চিলি) প্রভৃতি। অনেক চারা মানুষজনকে রোপণের জন্য দিয়েছেন।

সজীব অধিকারী জানান, ফুল কপি ধরেছে। পাতা কপি গোট বাঁধার অপেক্ষায়। এখন শাপলা ফুল বা বিদেশী পদ্মের জন্য তিনি অপেক্ষা করছেন। পাশাপাশি তিনি বিদেশী রসুনের ফলনের অপেক্ষায় রয়েছেন। ব্যানানা বা কলা ঝালের চারা তৈরি করছেন। বিট কপি এ মাসের শেষ দিকে উত্তোলন করা হবে। বেগুন ধরেছে গাছে। উত্তোলনও করা হয়েছে। আরো রয়েছে বোম্বাই মরিচ।

৫২টি পাত্রে তিনি সবজি চাষ করেছেন। সেখানে জৈব ও রাসায়নিক সার কীটনাশক ব্যবহার করে আশাপ্রদ ফল পেয়েছেন। এছাড়া নীল ঢ্যাড়স চাষ করবেন বলে বীজ সংগ্রহ করেছেন।

মানুষজন বিশেষ করে কৃষককে সবজি বা তরি তরকারি চাষে দক্ষ এবং আশানুরূপ ফলনে লাভজনক খাতে নিতেই বিচিত্র যশোর ইউটিউব চ্যানেলটি গড়েছেন। তার গীতাঞ্জলী স্টুডিওটি যশোরে ব্যাপক পরিচিত। গান নিয়ে কাজ করতে করতেই তার কৃষিতে আগ্রহ হয়। এখন তিনি দক্ষ কৃষক। তার মতে, কৃষি বাংলাদেশের অন্যতম সম্ভাবনাময় খাত। এই খাতে অনেক মানুষের জীবিকা নির্বাহ সম্ভব। বিশেষ করে আধুনিক কৃষিখাত অপার সম্ভাবনাময়।

সজীব অধিকারী যশোর শহরের নীলগঞ্জ সুপারী বাগান এলাকার সন্তান। তার পিতা খোকন অধিকারী, মাতা মলিনা অধিকারী। বিগত ১৩ বছর ধরে নিজের পরিচালনায় গীতাঞ্জলী স্টুডিও গানের অঙ্গনে সুনাম কুঁড়িয়েছে। সেখানে গান রেকডিং, ভিডিও এডিটিং, কি বোর্ড সঙ্গীত প্লে হয়। এখন তার বয়স ৩৩ বছর। এখনো তিনি অবিবাহিত।

ভবিষ্যতে তার ইচ্ছে বাংলাদেশে সর্বজনীন কৃষি ব্যবস্থা চালুতে ছোট পরিসরে হলেও ভূমিকা রাখা। অর্থাৎ কৃষি উন্নয়নে ভূমিকা রাখাই তার ইচ্ছা। এ লক্ষ্যে তার বিচিত্র যশোর ইউটিউব চ্যানেলটি ২০২০ সালে আত্মপ্রকাশ করে। এখনো পর্যন্ত সেখানে শতাধিক ভিডিও আপলোড হয়েছে। তার সাবস্ক্রাইবার ৪১ হাজারেরও বেশি।