চট্টগ্রামে লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্সে ছিনতাই

চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে একটি লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স দাঁড় করিয়ে মৃতের স্বজনদের কাছ থেকে মোবাইল, নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার ছিনিয়ে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার (১১ জানুয়ারি) ভোরে উপজেলার কধুরখীল খোকার দোকান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করে চরণদ্বীপ ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মো. সাদ্দাম জানান, পশ্চিম চরণদ্বীপের তোফায়েল আহমেদের ছেলে মো. ইলিয়াস (৫৫) নগরীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার (১০ জানুয়ারি) দিবাগত রাতে মারা যান। এরপর তার মরদেহ অ্যাম্বুলেন্সে করে পশ্চিম চরণদ্বীপ নিয়ে আসছিলেন স্বজনরা। পথে কধুরখীল খোকার দোকান এলাকায় একটি টেম্পু সড়কে আড়াআড়িভাবে দেখে অ্যাম্বুলেন্সটি দাঁড়িয়ে যায়। এ সময় ছিনতাইকারীরা ধারালো অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে অ্যাম্বুলেন্সে বসা মো. ইলিয়াসের স্ত্রী, মেয়ে ও নিকট আত্মীয়দের স্বর্ণালংকার, মোবাইল ও টাকা ছিনিয়ে নেয়। তিনি আরও বলেন, সোমবার দুপুর ২টায় মরহুম মো. ইলিয়াসের জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। ছিনতাইয়ের শিকার তাসনিয়া সুলতানা সুইটি জানান, রোববার দিবাগত রাত ১টার দিকে তার বাবা (মুহাম্মদ ইলিয়াস) মারা যান। মরদেহ বাড়িতে নিয়ে আসার পথে একটি টেম্পু কধুরখীল খোকার দোকান এলাকায় অ্যাম্বুলেন্সের গতিরোধ করে। মুখে রুমাল বাঁধা সাতজন টেম্পু থেকে নেমে অ্যাম্বুলেন্সের দরজায় ধাক্কা দিতে থাকে। একপর্যায়ে দরজা খুলে নগদ অর্থ, স্বর্ণালংকার ও মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে যায় তারা। এ বিষয়ে কধুরখীল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শফিউল আজম শেফু বলেন, ঘটনাটি খুবই মর্মান্তিক। বিষয়টি শোনার পর থেকে গ্রাম্য পুলিশ ও মেম্বার দিয়ে এ বিষয়ে খোঁজ নেয়া হচ্ছে। বোয়ালখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ আব্দুল করিম জানান, এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তবে পাওয়া গেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে। আবু আজাদ/এমএসএইচ

চট্টগ্রামে লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্সে ছিনতাই

চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে একটি লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স দাঁড় করিয়ে মৃতের স্বজনদের কাছ থেকে মোবাইল, নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার ছিনিয়ে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার (১১ জানুয়ারি) ভোরে উপজেলার কধুরখীল খোকার দোকান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে চরণদ্বীপ ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মো. সাদ্দাম জানান, পশ্চিম চরণদ্বীপের তোফায়েল আহমেদের ছেলে মো. ইলিয়াস (৫৫) নগরীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার (১০ জানুয়ারি) দিবাগত রাতে মারা যান। এরপর তার মরদেহ অ্যাম্বুলেন্সে করে পশ্চিম চরণদ্বীপ নিয়ে আসছিলেন স্বজনরা। পথে কধুরখীল খোকার দোকান এলাকায় একটি টেম্পু সড়কে আড়াআড়িভাবে দেখে অ্যাম্বুলেন্সটি দাঁড়িয়ে যায়। এ সময় ছিনতাইকারীরা ধারালো অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে অ্যাম্বুলেন্সে বসা মো. ইলিয়াসের স্ত্রী, মেয়ে ও নিকট আত্মীয়দের স্বর্ণালংকার, মোবাইল ও টাকা ছিনিয়ে নেয়।

তিনি আরও বলেন, সোমবার দুপুর ২টায় মরহুম মো. ইলিয়াসের জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

ছিনতাইয়ের শিকার তাসনিয়া সুলতানা সুইটি জানান, রোববার দিবাগত রাত ১টার দিকে তার বাবা (মুহাম্মদ ইলিয়াস) মারা যান। মরদেহ বাড়িতে নিয়ে আসার পথে একটি টেম্পু কধুরখীল খোকার দোকান এলাকায় অ্যাম্বুলেন্সের গতিরোধ করে। মুখে রুমাল বাঁধা সাতজন টেম্পু থেকে নেমে অ্যাম্বুলেন্সের দরজায় ধাক্কা দিতে থাকে। একপর্যায়ে দরজা খুলে নগদ অর্থ, স্বর্ণালংকার ও মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে যায় তারা।

এ বিষয়ে কধুরখীল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শফিউল আজম শেফু বলেন, ঘটনাটি খুবই মর্মান্তিক। বিষয়টি শোনার পর থেকে গ্রাম্য পুলিশ ও noমেম্বার দিয়ে এ বিষয়ে খোঁজ নেয়া হচ্ছে।

বোয়ালখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ আব্দুল করিম জানান, এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তবে পাওয়া গেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আবু আজাদ/এমএসএইচ