চোরকে পিটিয়ে কারাগারে দোকান মালিকও

দিনাজপুরে রডের দোকানে চুরির অভিযোগে রবিউল ইসলাম (৩৬) নামে এক ব্যক্তিকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন দোকানের মালিক মো. করিম। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে খুঁটির সঙ্গে বেঁধে মারধর করা হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে চোর ও দোকান মালিক দু’জনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পরে চুরির অভিযোগে রবিউল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন দোকান মালিক করিম। আর করিমের বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেন রবিউলের স্ত্রী সুমি। পৃথক দুটি মামলা গ্রহণ করে কোতোয়ালী থানা পুলিশ। এরপর চোর ও মালিক দু’জনকে গ্রেফতার দেখানো হয়। রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) দিনাজপুর শহরের বাহাদুর বাজারে এ ঘটনা ঘটে। সন্ধ্যায় থানায় মামলার পর বিষয়টি চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে তা ‘টক অব দ্য টাউন’ এ পরিণত হয়। কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাফফর হোসেন জানান, সকালে ব্যবসায়ী মো. করিম নিজের দোকান খুলতে গিয়ে দেখেন- রবিউল তার দোকানের ভেন্টিলেটর ভেঙে রড বের করে নিয়ে যাচ্ছে। এসময় তিনি তাকে ধরে ফেলেন। আশেপাশের মানুষ সেখানে এসে রবিউলকে খুঁটির সঙ্গে বেঁধে বেধড়ক মারধর করে। ওসি আরও জানান, পুলিশ খবর পেয়ে রবিউলকে থানায় নিয়ে আসে। তার বিরুদ্ধে দোকান মালিক করিম চুরির অভিযোগে মামলা দায়ের করেন। পরে চুরির সময় আটক রবিউলের স্ত্রী সুমি দোকান মালিক করিমের বিরুদ্ধে তার স্বামীকে নির্যাতনের অভিযোগে মামলা করেন। ওই মামলায় দোকান মালিককেও গ্রেফতার করা হয়। দোকান মালিক মো. করিম শহরের গণেশতলা এলাকার বাসিন্দা। তার রডসহ ভবন নির্মাণসামগ্রীর ব্যবসায় রয়েছে। অপরদিকে চুরির অভিযোগে গ্রেফতার রবিউল শহরের বাহাদুর বাজার এলাকার ছোটনের ছেলে। এমদাদুল হক মিলন/এএএইচ

চোরকে পিটিয়ে কারাগারে দোকান মালিকও

দিনাজপুরে রডের দোকানে চুরির অভিযোগে রবিউল ইসলাম (৩৬) নামে এক ব্যক্তিকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন দোকানের মালিক মো. করিম। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে খুঁটির সঙ্গে বেঁধে মারধর করা হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে চোর ও দোকান মালিক দু’জনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

পরে চুরির অভিযোগে রবিউল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন দোকান মালিক করিম। আর করিমের বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেন রবিউলের স্ত্রী সুমি। পৃথক দুটি মামলা গ্রহণ করে কোতোয়ালী থানা পুলিশ। এরপর চোর ও মালিক দু’জনকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) দিনাজপুর শহরের বাহাদুর বাজারে এ ঘটনা ঘটে। সন্ধ্যায় থানায় মামলার পর বিষয়টি চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে তা ‘টক অব দ্য টাউন’ এ পরিণত হয়।

কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাফফর হোসেন জানান, সকালে ব্যবসায়ী মো. করিম নিজের দোকান খুলতে গিয়ে দেখেন- রবিউল তার দোকানের ভেন্টিলেটর ভেঙে রড বের করে নিয়ে যাচ্ছে। এসময় তিনি তাকে ধরে ফেলেন। আশেপাশের মানুষ সেখানে এসে রবিউলকে খুঁটির সঙ্গে বেঁধে বেধড়ক মারধর করে।

ওসি আরও জানান, পুলিশ খবর পেয়ে রবিউলকে থানায় নিয়ে আসে। তার বিরুদ্ধে দোকান মালিক করিম চুরির অভিযোগে মামলা দায়ের করেন। পরে চুরির সময় আটক রবিউলের স্ত্রী সুমি দোকান মালিক করিমের বিরুদ্ধে তার স্বামীকে নির্যাতনের অভিযোগে মামলা করেন। ওই মামলায় দোকান মালিককেও গ্রেফতার করা হয়।

দোকান মালিক মো. করিম শহরের গণেশতলা এলাকার বাসিন্দা। তার রডসহ ভবন নির্মাণসামগ্রীর ব্যবসায় রয়েছে। অপরদিকে চুরির অভিযোগে গ্রেফতার রবিউল শহরের বাহাদুর বাজার এলাকার ছোটনের ছেলে।

এমদাদুল হক মিলন/এএএইচ