চাচাতো ভাইয়ের স্ত্রীর গোসলের ভিডিও ধারণ করে ধর্ষণ

নেত্রকোনার সদর উপজেলায় গৃহবধূকে (২৮) জোর করে ধর্ষণ করে তা মোবাইল ফোনে ধারণ করে এক যুবক। এরপরে ওই ভিডিও ফাঁস করার ভয় দেখিয়ে বিভিন্ন সময় ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করা হয়। সোমবার (২৮ ডিসেম্বর) এ ঘটনায় রাতে পুলিশ নিজ গ্রাম থেকে ওই যুবককে আটক করে। পরে মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) বিকেলে দায়ের করা একটি মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

চাচাতো ভাইয়ের স্ত্রীর গোসলের ভিডিও ধারণ করে ধর্ষণ
প্রতীকী ছবি

আটককৃত ওই যুবকের নাম বিশ্বজিত খান (৩২)। তিনি সদর উপজেলার সিংহের বাংলা ইউনিয়নের একটি গ্রামের বাসিন্দা। তিনি পেশায় চট্টগ্রামে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বিশ্বজিতের চাচাতো ভাইয়ের স্ত্রী ওই গৃহবধূ। তাদের বাড়ি পাশাপাশি। ২০১৬ সালে ওই গৃহবধূ বাথরুমে গোসল করতে গেলে বিশ্বজিত কৌশলে তার নগ্ন ছবি মোবাইল ফোনে ধারণ করে রাখে। এরপরে তিনি তা গৃহবধূকে দেখিয়ে ও তা নেটে ছেড়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে জোর করে ধর্ষণ করে। ওই ধর্ষণের ভিডিও বিশ্বজিত মোবাইল ফোনে ধারণ করেন। এরপর বিভিন্ন সময় ভয় ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করে আসছিলেন।

সম্প্রতি ওই নারীকে কুপ্রস্তাব দেন বিশ্বজিত। তাতে রাজি না হওয়ায় ওই ভিডিও তার স্বামীর ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে পাঠিয়ে দেয়। এ ঘটনা নিয়ে গত সপ্তাহে ওই নারী থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

গত সোমবার (২৮ ডিসেম্বর) পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করে রাতে মডেল থানার এসআই আসাদুল ইসলামের নেতৃত্বে বিশ্বজিতকে আটক করা হয়। এ সময় তার সঙ্গে থাকা মোবাইল ফোনে ওই ভিডিওটি পাওয়া যায়। পরে মঙ্গলবার বিকেলে ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। মামলায় বিশ্বজিতকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

নেত্রকোনা মডেল থানার এসআই আসাদুল ইসলাম বলেন, গ্রেপ্তার হওয়া বিশ্বজিতকে আদালতে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

সুত্রঃ আরটিভি অনলাইন