চুয়াডাঙ্গায় সড়ক দুর্ঘটনায় স্বর্ণ ব্যবসায়ী নিহত

চুয়াডাঙ্গায় সড়ক দুর্ঘটনায় তপন হালদার (৪০) নামে এক স্বর্ণ ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও দু’জন। আজ বুধবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে সদর উপজেলার আলুকদিয়া বাজারের অদূরে ওই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত তপন হালদার চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার মালোপাড়ার স্বর্গীয় রবীন্দ্রনাথ হালদারের ছেলে ও জুয়েলার্স ব্যবসায়ী। আহতরা হলেন, সদর উপজেলার দৌলতদিয়াড় গ্রামের আব্দুল বাতেনের ছেলে গোলাম মোস্তফা( ২৫) ও একই উপজেলার আকুন্দবাড়িয়া গ্রামের ফজলুল হকের ছেলে কলেজছাত্র তাহাজ্জেদ হোসেন (২২)। তাদের চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

চুয়াডাঙ্গায় সড়ক দুর্ঘটনায় স্বর্ণ ব্যবসায়ী নিহত
নিহ তপন হালদার। ছবিঃ আরটিভি অনলাইন

স্থানীয়রা জানান, বিকেলে মেহেরপুর কোলার মোড়ে টাকা আদায় করতে গিয়েছিল জুয়েলার্স ব্যবসায়ী তপন হালদার ও তার দোকানের কর্মচারী গোলাম মোস্তফা। সন্ধ্যায় বাড়ি ফেরার পথে আলুকদিয়া বাজার পার হওয়ার সময় বিপরীত দিক থেকে আসা কলেজছাত্র তাহাজ্জেদ হোসেনের বাইসাইকেলের সঙ্গে তাদের মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

এ সময় মোটরসাইকেল চালক গোলাম মোস্তফা নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মেহেরপুর অভিমুখে আসা দ্রুতগামী একটি ট্রাকের সঙ্গে ধাক্কা মারে। এতে গুরুতর জখম হন তারা। তাদের উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নেয় চুয়াডাঙ্গা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সদস্যরা।

চুয়াডাঙ্গা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপ-সহকারী পরিচালক আব্দুস সালাম    জানান, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে তাদের উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নেয়া হলে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক তপনকে মৃত ঘোষণা করেন।

জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা.মাহাবুবুর রহমান জানান, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে তপনের মৃত্যু হয়েছে। আহত গোলাম মোস্তফা ও তাহাজ্জত হোসেনকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। গোলাম মোস্তফার বাম পা ভেঙে গেছে এবং তাহাজ্জেদ হোসেনের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত লেগেছে।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান জানান, কোনও অভিযোগ না থাকায় নিহত তপনের মরদেহ ময়নাতদন্ত ছাড়াই পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ বিষয়ে সদর থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হবে।

সুত্রঃ আরটিভি