ডাকাতিয়ায় বরযাত্রীবাহী ট্রলারডুবিতে শিশু নিখোঁজ, নববধূসহ আহত ৭

চাঁদপুরে বালু বহন করা ট্রলারের ধাক্কায় (ভালকহেড) বরযাত্রীসহ ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটেছে। এতে নববধূসহ অন্তত ৭ জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় এখনও এক শিশু নিখোঁজ রয়েছেন। রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে ৯টার দিকে ডাকাতিয়া নদীর মৈশাদী ইউনিয়নের হামানকর্দি গ্রামের বারেক মেম্বারের দোকানের কাছাকাছি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, রোববার রাতে পাইকদি মোল্লার বাজার দাসবাড়ির খোকন দাসের ছেলে প্রবাসী নিবাস দাসের সঙ্গে চরমেশা গ্রামের পরেশ দাসের মেয়ে কবিতা দাসের বিয়ে ছিল। শনিবার বরপক্ষের লোকজন কনের বাড়িতে অবস্থান করে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শুরু করে। আজ বরের বাড়িতে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতার জন্য অর্ধশতাধিক বরযাত্রী নিয়ে ট্রলারযোগে রওয়ানা করে। পথিমধ্যে বালু টানা জাহাজ বরযাত্রীবাহী ট্রলারকে ধাক্কা দেয়। এতে ট্রলারটি পানিতে ডুবে যায়। ঘটনার পর বিয়ে বাড়ির অধিকাংশ লোকজন সাঁতরে তীরে আসে। স্থানীয়রা ৭/৮ জনকে উদ্ধার করে। তারা আহত হয়েছেন। এর মধ্যে নববধূ কবিতা দাসও রয়েছেন। তাদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় সনজীত দাসের মেয়ে পিংকি (৮) এখনও নিখোঁজ রয়েছে। এদিকে দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে কোস্ট গার্ডের সদস্যরা। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তারা নদীতে উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছিলেন। তবে এখনও নিখোঁজ শিশুর সন্ধান মেলেনি। ইউপি সদস্য মো. বারেক খান জানান, ঘটনা জানার পর ঘটনাস্থলে এসেছি। পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। নিখোঁজ শিশুটির এখনও সন্ধান মেলেনি। নজরুল ইসলাম আতিক/এএএইচ

ডাকাতিয়ায় বরযাত্রীবাহী ট্রলারডুবিতে শিশু নিখোঁজ, নববধূসহ আহত ৭

চাঁদপুরে বালু বহন করা ট্রলারের ধাক্কায় (ভালকহেড) বরযাত্রীসহ ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটেছে। এতে নববধূসহ অন্তত ৭ জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় এখনও এক শিশু নিখোঁজ রয়েছেন।

রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে ৯টার দিকে ডাকাতিয়া নদীর মৈশাদী ইউনিয়নের হামানকর্দি গ্রামের বারেক মেম্বারের দোকানের কাছাকাছি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, রোববার রাতে পাইকদি মোল্লার বাজার দাসবাড়ির খোকন দাসের ছেলে প্রবাসী নিবাস দাসের সঙ্গে চরমেশা গ্রামের পরেশ দাসের মেয়ে কবিতা দাসের বিয়ে ছিল। শনিবার বরপক্ষের লোকজন কনের বাড়িতে অবস্থান করে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শুরু করে। আজ বরের বাড়িতে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতার জন্য অর্ধশতাধিক বরযাত্রী নিয়ে ট্রলারযোগে রওয়ানা করে।

পথিমধ্যে বালু টানা জাহাজ বরযাত্রীবাহী ট্রলারকে ধাক্কা দেয়। এতে ট্রলারটি পানিতে ডুবে যায়। ঘটনার পর বিয়ে বাড়ির অধিকাংশ লোকজন সাঁতরে তীরে আসে। স্থানীয়রা ৭/৮ জনকে উদ্ধার করে। তারা আহত হয়েছেন। এর মধ্যে নববধূ কবিতা দাসও রয়েছেন। তাদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় সনজীত দাসের মেয়ে পিংকি (৮) এখনও নিখোঁজ রয়েছে।

এদিকে দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে কোস্ট গার্ডের সদস্যরা। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তারা নদীতে উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছিলেন। তবে এখনও নিখোঁজ শিশুর সন্ধান মেলেনি।

ইউপি সদস্য মো. বারেক খান জানান, ঘটনা জানার পর ঘটনাস্থলে এসেছি। পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। নিখোঁজ শিশুটির এখনও সন্ধান মেলেনি।

নজরুল ইসলাম আতিক/এএএইচ