ডিসেম্বরে চাকরিচ্যুত দেড় লাখ মার্কিনি

করোনায় বিপর্যস্ত যুক্তরাষ্ট্রে ২০২০ সালের ডিসেম্বরে চাকরিচ্যুত হয়েছে ১ লাখ ৪০ হাজার মার্কিনি। শুক্রবার (৮ জানুয়ারি) দেশটির শ্রম পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিএলএস) প্রকাশিত উপাত্তে এ তথ্য উঠে ...

ডিসেম্বরে চাকরিচ্যুত দেড় লাখ মার্কিনি
করোনায় বিপর্যস্ত যুক্তরাষ্ট্রে ২০২০ সালের ডিসেম্বরে চাকরিচ্যুত হয়েছে ১ লাখ ৪০ হাজার মার্কিনি। শুক্রবার (৮ জানুয়ারি) দেশটির শ্রম পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিএলএস) প্রকাশিত উপাত্তে এ তথ্য উঠে এসেছে। চাকরি হারানো বেশির ভাগই নারী, হিস্পানিক ও কিশোর-কিশোরী। নতুন করে সংক্রমণ বৃদ্ধিতে বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনীতিটির পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়া যে স্তব্ধ হয়ে গেছে, তা বিএলএসের এ উপাত্তেই স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। 

সম্প্রতি দেশটিতে সংক্রমণ ব্যাপক বৃদ্ধি পেয়েছে, একদিনেই দেখা গেছে চার হাজার মৃত্যু। যা দেশটিকে আবারও বিধিনিষেধের দিকে চালিত করেছে। যা অবকাশ ও আতিথেয়তা খাতকে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। করোনা আসার পর এ খাতে ৩৯ লাখ চাকরি হারিয়েছে।

বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে ১ কোটি ৭০ হাজার মানুষ কর্মহীন রয়েছে। গত মাসে বেকারত্বের হার দাঁড়িয়েছে ৬ দশমিক ৭ শতাংশ। টানা সাত মাসের মতো দেশটির বেকারত্ব হার এর আশপাশেই রয়েছে। অবশ্য বেশ কয়েকটি খাতে নতুন কর্মসংস্থানও হয়েছে। 

উদাহরণস্বরূপ, রিটেইল খাতে গত মাসে ১ লাখ ২১ হাজার নতুন কর্মসংস্থান হয়েছে।  তবে উদ্বেগজনক তথ্য হচ্ছে, কৃষ্ণাঙ্গ ও লাতিনো নারীরা অধিক হারে চাকরি হারালেও শ্বেতাঙ্গ নারীদের কর্মসংস্থান বেড়েছে।

ইনস্টিটিউট ফর উইমেনস পলিসি রিসার্চের প্রেসিডেন্ট ও সিইও সি নিকোল ম্যাসন জানান, গত ফেব্রুয়ারির পর থেকে ৫৪ লাখ নারী চাকরি হারিয়েছেন। বিপরীতে চাকরি হারানো পুরুষের সংখ্যা ৪৪ লাখ। অথচ কর্মসংস্থানে সমতার বেশ ইতিবাচক ছবি নিয়ে যাত্রা শুরু হয়েছিল ২০২০। 

তিনি আরও জানান, মোট কর্মসংস্থানের ৫০.০৩ শতাংশ দখল করে রেখেছিলেন মার্কিন নারীরা। কিন্তু বছর শেষ হলো পুরুষদের চেয়ে ৮ লাখ ৬০ হাজার কম চাকরি নিয়ে। মূলত তিনটি খাত—শিক্ষা, আতিথেয়তা ও রিটেইলে কর্মী ছাঁটাই বৃদ্ধিতে এমনটা হয়েছে। এ খাতগুলো নারীপ্রধান খাত হিসেবে আলাদা জায়গা করে রেখেছিল।

ম্যাসন বলেন, মহামারি আমাদের নিয়ন্ত্রণে নেই, স্কুল ও ডে কেয়ার সেন্টারগুলো এখনো বন্ধ হচ্ছে। এছাড়া গত ডিসেম্বর রেস্টুরেন্ট ও বারগুলো সর্বোচ্চ কর্মী ছাঁটাই করেছে। এক্ষেত্রে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন খণ্ডকালীন কর্মীরা।

ব্রেকিংনিউজ/এম