দামুড়হুদার নতিপোতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মমিনুল ইসলাম আপত্তিকর আবস্থায় আটক:গণধোলায় শেষে পুলিশে সোর্পদ

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার নতিপোতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও নতিপোতা ইউনিয়ন আঃলীগের সাধারণ সম্পাদক মমিনুল ইসলাম মমিন মাষ্টার নারীসহ স্থানীয়দের হাতে আটক হয়েছে।

দামুড়হুদার নতিপোতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মমিনুল ইসলাম আপত্তিকর আবস্থায় আটক:গণধোলায় শেষে পুলিশে সোর্পদ

গতকাল  শনিবার ১৩ ফেব্রুয়ারি রাত ৮ টার দিকে উপজেলার ভগিরথপুর গ্রামের আলিহিমের বাড়িতে নারীসহ স্থানীয়রা তাকে আটক করে গনধোলায় শেষে রাতেই তাকে থানা পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। এ ব্যপারে পাল্টা পাল্টি দু'টি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
স্থানীয়রা জানায়, শনিবার রাতে নতিপোতা গ্রামের মজিদুল ইসলামের ছেলে,  নতিপোতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক  মমিনুল ইসলাম কে  উপজেলার ভগিরাতপুর গ্রামের আলিহীমের বাড়িতে উপজেলার বেড়বাড়ি গ্রামের পর স্ত্রীর সাথে আপত্তিকর বিবস্ত্র শুধু (জাঙ্গীয়া) পরা ও একটি তোয়ালে গায়ে থাকা  অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে আটক করে।এসময় উৎসুক জনতা মমিনুল ইসলাম মমিন মাষ্টারকে বেধড়ক পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে দামুড়হুদা মডেল থানা পুলিশের  খবর দেয়।পরে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লে-ক্সে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে থানায় নেই।
এদিকে মমিন মাস্টার জানান, মেয়ে নিজেই তাকে ডেকে নিয়ে গিয়ে পরিকল্পিত ভাবে এই ঘটনা ঘটিয়েছে। 
এ ব্যপারে মডেল থানার সেকেন্ড অফিসার এস আই বাকিবিল্লাহ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, রাতেই মেয়ে পক্ষ একটি ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগ দায়ের করে। অপর দিকে মমিন মাষ্টার নিজেই বাদী হয়ে তাকে পরিকল্পিত ভাবে ডেকে নিয়ে গিয়ে ফাঁসানো হয়েছে ও  মারধর করা হয়েছে এমন লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।