ধর্ষণ চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে অন্তঃসত্ত্বাকে প্রহার, গর্ভের শিশুর ...

ধর্ষণ চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে মারধরের ফলে তার গর্ভের সন্তান মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। সোমবার শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার ভোজেশ্বর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। আর গত বুধবার রাতে ...

ধর্ষণ চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে অন্তঃসত্ত্বাকে প্রহার, গর্ভের শিশুর ...
ধর্ষণ চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে মারধরের ফলে তার গর্ভের সন্তান মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। সোমবার শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার ভোজেশ্বর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। আর গত বুধবার রাতে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই নারী মৃত সন্তান জন্ম দেন। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ওই নারীর স্বামী নড়িয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

মামলা ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ওই নারী আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। প্রতিদিন সকালে নামাজ শেষে হাঁটতে বের হন তিনি। গত সোমবার হাঁটতে বের হলে পাশের বাড়ির ইউনুস তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এসময় ওই নারী ইউনুসের হাতে কামড় দেয় এবং চিৎকার করেন। এরপর ইউনুসের বাড়ির লোকজন এসে উল্টে তাকেই মারধর করতে থাকে। পরে আশেপাশের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান।  

স্থানীয়রা আরও জানান, ইউনুসের পরিবারের সঙ্গে ওই নারীর পরিবারের পারিবারিক দ্বন্দ্ব রয়েছে। কিছুদিন আগেও তাদের ঝামেলা হয়েছিল। এর জের ধরেই তাকে ধর্ষণের চেষ্টা চালানো হতে পারে। 

এদিকে অভিযুক্ত ইউনুস জানান, সকালে মাছ বিক্রি করতে যাবার সময় ওই নারীই উল্টে তাকে জড়িয়ে ধরেন। তাকে ফাঁসানোর জন্য পরিকল্পিতভাবে এই ঘটনা সাজানো হয়েছে বলেও দাবি তার। তবে মারধরের কথা জিজ্ঞেস করলে তার কোন উত্তর দেননি তিনি।   

হাসপাতালের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, নারীকে যেদিন হাসপাতালে আনা হয় সেদিনই তার শারীরিক পরিস্থিতি ভাল ছিল না। তাকে কিছু পরীক্ষা করিয়ে দেখা যায় বাচ্চাটি মারা গেছে। পরে বুধবার তিনি মৃত সন্তান প্রসব করেন। ময়নাতদন্ত শেষে বাচ্চার মারা যাওয়ার কারণ নিশ্চিত হওয়া যাবে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে পুলিশ জানায়, ধর্ষণ চেষ্টা ও হত্যার অভিযোগ এনে বৃহস্পতিবার গৃহবধূর স্বামী একটি মামলা দায়ের করেন। শিশুটির লাশ ময়নাতদন্ত করা হবে। তদন্ত শেষে অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 
 
ব্রেকিংনিউজ/পিসি