পথ ভুলে বিমান ! তারপর যা ঘটল

অনেক সময় এমন হয় যে কোনো স্থলপথের গাড়ি রাস্তা ভুল করে অনেক দূরে চলে গেছে। কিন্তু এবার যা ঘটেছে তা আসলেই অন্যরকম একটি ঘটনা। আকাশপথে একটি বিমান ভুল করে অন্য গন্তব্যে চলে গেছে। তাও আবার ৪০০ কি.মি. দূরে।

পথ ভুলে  বিমান ! তারপর যা ঘটল

এ ঘটনায় যাত্রীদের কোনো দোষ ছিল না কারণ, তারা ঠিক বিমানটিতেই উঠেছিল। কিন্তু কর্তৃপক্ষের ভুলের কারণে নিজেদের গন্তব্য থেকে ৪০০ কিলোমিটার দূরের শহরে যেতে হয়েছে যাত্রীদের। শুনতে অবাক লাগলেও এমনটাই কিন্তু ঘটেছে নেপালে। 

দেশটির অভ্যন্তরীণ বিমানসংস্থা ‘‌বুদ্ধ এয়ার’ কর্তৃপক্ষের নিজস্ব ভুলের কারণে ৬৬ জন যাত্রী নিজেদের গন্তব্যে যাওয়ার বদলে পৌঁছান অনেক দূরের এক শহরে যা গন্তব্য থেকে ৪০০ কিলোমিটার দূরে। আর এ ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই রীতিমতো হইচই পড়ে গিয়েছে।‌

জানা গেছে, গত ১৮ ডিসেম্বর কাঠমুন্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ৬৬ জন যাত্রীকে নিয়ে বুদ্ধ এয়ারওয়েজের একটি বিমান উত্তর-পশ্চিমের শহর পোখারার উদ্দেশে রওনা হয়। কিন্তু সবার অজান্তেই সেটি চলে যায় দেশের দক্ষিণ অংশের শহর জনকপুরে। যা কি না পোখারা থেকে ৪০০ কিলোমিটার দূরে। যা দেখে অবাক হয়ে যান যাত্রীরাও।

কিন্তু কেন এমন হল? এ বিষয়ে‌ সংস্থার এক শীর্ষ কর্মকর্তা সাক্ষাৎকারে বলেন, 'যোগাযোগ ব্যবস্থায় ত্রুটি এবং নির্দিষ্ট কিছু বিধি বা নিয়ম না মানার কারণেই এই ঘটনা ঘটতে পারে।’ তবে তিনি জানান, বিষয়টির পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হবে। এই ঘটনা কীভাবে ঘটল?‌ দোষ কার?‌ সেগুলোও দেখা হবে।‌ 

এদিকে, ঘটনার আকস্মিকতায় যাত্রীরা স্তম্ভিত হয়ে গেলেও বড়সড় কোনও ঝামেলা ঘটেনি। বিশেষ অনুমতি নিয়ে পরের একটি বিমানে সবাইকেই জনকপুর থেকে পোখারায় পৌঁছে দেওয়া হয়। তবে বিমানসংস্থার এই ত্রুটির জন্য গন্তব্যে পৌঁছাতে দেরি হওয়ায় অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন। 

সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আগামীতে এই ধরনের ঘটনা এড়াতে কর্মীদের আরও ভালোভাবে প্রশিক্ষণও দেওয়া হবে।

তবে এটিই প্রথম নয়, এর আগে ২০১৯ সালে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের মতো সংস্থার একটি বিমানও একইরকম গণ্ডগোল করেছিল। লন্ডন থেকে ডাসেলডর্ফে যাওয়ার পথে বিমান পৌঁছে গিয়েছিল এডিনবরাতে।

সূত্র: ডেইলি মেইল