প্রবাসীদের সেবায় ‘আমি প্রবাসী’অ্যাপের উদ্বোধন

বৈদেশিক কর্মসংস্থান সংক্রান্ত সেবা আরও সহজ ও ডিজিটালাইজড করার লক্ষে ‘আমি প্রবাসী নামক একটি অ্যাপের উদ্বোধন করা হয়েছে। শনিবার প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমদ অ্যাপের উদ্বোধন করেন।

প্রবাসীদের সেবায় ‘আমি প্রবাসী’অ্যাপের উদ্বোধন

মুজিব বর্ষের একটি উদ্যোগ হিসেবে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান এবং বেসরকারি অ্যাপস নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের যৌথ উদ্যোগে অ্যাপটি তৈরি করা হয়েছে।

ইমরান আহমদ বলেন, বৈদেশিক কর্মসংস্থানে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে 'আমি প্রবাসী' অ্যাপটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।

তিনি আশা ব্যক্ত করে বলেন, এই অ্যাপ ব্যবহার করে প্রবাসী কর্মীরা উপকৃত হবেন।

তিনি বলেন, বর্তমান করোনা মহামারির চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করেই সবাইকে প্রবাসীদের কল্যাণ নিশ্চিত করতে হবে।

দেশের অর্থনীতিতে রেমিটেন্সের অবদানের কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, 'প্রবাসীদের রেমিটেন্সে প্রণোদনার পরিমান ২ শতাংশ থেকে ৪ শতাংশ করার জন্য অর্থমন্ত্রীর কাছে একটি পত্র প্রেরণ করা হয়েছে।'

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব ড. আহমেদ কায়কাউস বলেন, 'জনশক্তি রপ্তানি বাংলাদেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ খাত।দেশের অর্থনীতি ও উন্নয়নে প্রবাসীদের রেমিটেন্সের গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে। তবে প্রবাসীদের রেমিটেন্স যেন ভালোভাবে ব্যয় হয়-সেদিকে লক্ষ্য রাখা প্রয়োজন।'

তিনি আরও বলেন, এই অ্যাপ অভিবাসনের লক্ষ্য পূরণে অনেক দূর এগিয়ে যাক-এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন বলেন, 'বিদেশ গমনেচ্ছু কর্মীদের বিদ্যমান ডাটা ব্যাংকে অন্তর্ভুক্তির জন্য ব্যবহারকারীরাএই অ্যাপটিকে একটি ঐচ্ছিক চ্যানেল হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। এর ফলে বিএমইটি’র বিদ্যমান সুবিধার পাশাপাশি ব্যবহারকারীগণ ঘরে বসেই নিজস্ব স্মার্টফোন থেকে বিএমইটি’র ডাটা ব্যাংকে অন্তর্ভুক্তির সুবিধা পাবেন।'