প্রস্তুতিতে ঘাটতি দেখছেন না ‘রোমাঞ্চিত’ শান্ত

দেশের অন্যতম সেরা কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন মনে করেন, গত এক বছরে বাংলাদেশের কোন ক্রিকেটার, কোন ব্যাটসম্যানের যদি উন্নতি হয়ে থাকে- তাহলে সেটি সবচেয়ে বেশি হয়েছে বাঁহাতি টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেন শান্তর। সালাউদ্দিনের মূল্যায়ন, প্রায় প্রতিদিনই কিছু না কিছু উন্নতি করেছেন শান্ত। সেটা এমনিই বলেননি সালাউদ্দিন। ঘরোয়া ক্রিকেটেও শান্তর উন্নতি চোখে পড়েছে। বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহীর হয়ে পুরো আসরেই খেলেছেন ধারাবাহিকভাবে, হাঁকিয়েছেন দারুণ এক সেঞ্চুরি, দিয়েছেন নিজের সামর্থ্যের প্রমাণ। নির্বাচকরাও তার উন্নতিটা পাখির চোখে পরখ করেছেন। সে কারণেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে আর টেস্ট- উভয় ফরম্যাটের দলেই জায়গা মিলেছে শান্তর। আজ (রোববার) ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের আগে জাতীয় দলের অনুশীলন শুরুর প্রথম দিন শান্তও জানিয়ে দিলেন একই কথা। তিনি বলেন, ‘আমি অনেক রোমাঞ্চিত। অনেক বেশি এক্সাইটেড। অনেকদিন পর সবাই আবার একসঙ্গে ন্যাশনাল ক্যাম্পে জয়েন করেছি। খুব ভালো একটা প্র্যাকটিস সেশনও হয়েছে। সবার সাথে একসাথে অনেক দিন পর দেখা হলো, অনেক উপভোগ করছি। যদিও লাস্ট টুর্নামেন্টটা আমরা একসাথে ছিলাম। তবে একসঙ্গে ড্রেসিংরুম শেয়ার করাটা অন্যরকম অনুভূতি।’ শান্তর ধারণা, ঘরোয়া ক্রিকেটে পঞ্চাশ ওভার আর কুড়ি ওভারের দুটি টুর্নামেন্টে অংশ নিলেও, জাতীয় দলের হয়ে খেলা ভিন্ন ব্যাপার। তারপরও তার মনে হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের আগে তারা মোটামুটি প্রস্তুত। তাই মুখে এমন কথা, ‘অবশ্যই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেটে আমরা এক বছর পর খেলব। তবে আমি মনে করি প্রস্তুতি মোটামুটি ভালোই হয়েছে। কারণ সবশেষ একটা টুর্নামেন্ট খেলেছি। প্রেসিডেন্টস কাপও আমরা সবাই খেলেছি। তাই প্রস্ততি মোটামুটি ভালোই হয়েছে। শান্ত আরও যোগ করেন, ‘তারপরও অনেকদিন পরে... প্র্যাকটিসে আমরা ওই জিনিসগুলো নিয়ে আলাপ আলোচনা করেছি। আমাদের প্র্যাকটিস ম্যাচও হবে। এই প্র্যাকটিস ম্যাচগুলো যদি আমরা ভালোভাবে করতে পারি তাহলে আমার মনে হয় খুব বেশি একটা সমস্যা হবে না।’ এআরবি/এসএএস/এমকেএইচ

প্রস্তুতিতে ঘাটতি দেখছেন না ‘রোমাঞ্চিত’ শান্ত

দেশের অন্যতম সেরা কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন মনে করেন, গত এক বছরে বাংলাদেশের কোন ক্রিকেটার, কোন ব্যাটসম্যানের যদি উন্নতি হয়ে থাকে- তাহলে সেটি সবচেয়ে বেশি হয়েছে বাঁহাতি টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেন শান্তর। সালাউদ্দিনের মূল্যায়ন, প্রায় প্রতিদিনই কিছু না কিছু উন্নতি করেছেন শান্ত।

সেটা এমনিই বলেননি সালাউদ্দিন। ঘরোয়া ক্রিকেটেও শান্তর উন্নতি চোখে পড়েছে। বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহীর হয়ে পুরো আসরেই খেলেছেন ধারাবাহিকভাবে, হাঁকিয়েছেন দারুণ এক সেঞ্চুরি, দিয়েছেন নিজের সামর্থ্যের প্রমাণ।

নির্বাচকরাও তার উন্নতিটা পাখির চোখে পরখ করেছেন। সে কারণেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে আর টেস্ট- উভয় ফরম্যাটের দলেই জায়গা মিলেছে শান্তর। আজ (রোববার) ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের আগে জাতীয় দলের অনুশীলন শুরুর প্রথম দিন শান্তও জানিয়ে দিলেন একই কথা।

তিনি বলেন, ‘আমি অনেক রোমাঞ্চিত। অনেক বেশি এক্সাইটেড। অনেকদিন পর সবাই আবার একসঙ্গে ন্যাশনাল ক্যাম্পে জয়েন করেছি। খুব ভালো একটা প্র্যাকটিস সেশনও হয়েছে। সবার সাথে একসাথে অনেক দিন পর দেখা হলো, অনেক উপভোগ করছি। যদিও লাস্ট টুর্নামেন্টটা আমরা একসাথে ছিলাম। তবে একসঙ্গে ড্রেসিংরুম শেয়ার করাটা অন্যরকম অনুভূতি।’

শান্তর ধারণা, ঘরোয়া ক্রিকেটে পঞ্চাশ ওভার আর কুড়ি ওভারের দুটি টুর্নামেন্টে অংশ নিলেও, জাতীয় দলের হয়ে খেলা ভিন্ন ব্যাপার। তারপরও তার মনে হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের আগে তারা মোটামুটি প্রস্তুত।

তাই মুখে এমন কথা, ‘অবশ্যই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেটে আমরা এক বছর পর খেলব। তবে আমি মনে করি প্রস্তুতি মোটামুটি ভালোই হয়েছে। কারণ সবশেষ একটা টুর্নামেন্ট খেলেছি। প্রেসিডেন্টস কাপও আমরা সবাই খেলেছি। তাই প্রস্ততি মোটামুটি ভালোই হয়েছে।

শান্ত আরও যোগ করেন, ‘তারপরও অনেকদিন পরে... প্র্যাকটিসে আমরা ওই জিনিসগুলো নিয়ে আলাপ আলোচনা করেছি। আমাদের প্র্যাকটিস ম্যাচও হবে। এই প্র্যাকটিস ম্যাচগুলো যদি আমরা ভালোভাবে করতে পারি তাহলে আমার মনে হয় খুব বেশি একটা সমস্যা হবে না।’