বাণিজ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি ন্যাপের

পেঁয়াজ, আলু, সবজি, ভোজ্যতেলসহ নিত্যপণ্যের বাজার নিয়ন্ত্রণে বাণিজ্যমন্ত্রী পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছেন বলে মন্তব্য করে বাণিজ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেছে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ)। দলটির চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি ও মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া রোববার (১০ জানুয়ারি) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ দাবি জানান। বিবৃতিতে তারা বলেন, আলু, চালের পর এবার সিন্ডিকেটের থাবা পড়েছে ভোজ্যতেল ও ডালের বাজারে। মিলগেট থেকে এই চক্র প্রতি সপ্তাহেই নীরবে দুটি নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি করছে। ফলে পাইকারি ও খুচরা পর্যায়ে দাম বাড়ছে। আর ভোক্তাদের এই পণ্য দুটি কিনতে রীতিমতো হিমশিম খেতে হচ্ছে। তারা আরও বলেন, নিত্যপণ্যের বাজার এখন অসাধু সিন্ডিকেটের নিয়ন্ত্রণে। পেঁয়াজে নৈরাজ্যের পর চাল, আলু ও ভোজ্যতেল নিয়ে সিন্ডিকেটের কারসাজি চলছে। হু হু করে বৃদ্ধি পাচ্ছে মুল্য। এসব পণ্যের দাম নাগালে রাখতে সরকার বার বার মূল্য নির্ধারণ করে দিলেও তা বাজারে কার্যকর হচ্ছে না। বাজার নিয়ন্ত্রণে সকল প্রচেষ্টা ব্যর্থ হচ্ছে বাণিজ্য মন্ত্রনালয়ের। ব্যবসায়ীরা অতিরিক্ত মূল্যেই এসব ভোগ্যপণ্য বিক্রি করছেন। ন্যাপ নেতারা বলেন, বাজার নিয়ন্ত্রণে সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণ অতি জরুরি। বর্তমানে তেল ও চালসহ নিত্যপণ্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির কোনো কারণ নেই। এমনিতেই করোনায় অনেকের আয় কমে গেছে, কেউ বেকার হয়ে পড়েছেন। এ অবস্থায় মরার ওপর খাড়ার ঘায়ের মতো নেমে এসেছে নিত্যপণ্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি। এতে করে মধ্যবিত্ত ও সীমিত আয়ের মানুষ চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছে। কেএইচ/এমএইচআর/এমএস

বাণিজ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি ন্যাপের

পেঁয়াজ, আলু, সবজি, ভোজ্যতেলসহ নিত্যপণ্যের বাজার নিয়ন্ত্রণে বাণিজ্যমন্ত্রী পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছেন বলে মন্তব্য করে বাণিজ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেছে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ)। দলটির চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি ও মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া রোববার (১০ জানুয়ারি) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ দাবি জানান।

বিবৃতিতে তারা বলেন, আলু, চালের পর এবার সিন্ডিকেটের থাবা পড়েছে ভোজ্যতেল ও ডালের বাজারে। মিলগেট থেকে এই চক্র প্রতি সপ্তাহেই নীরবে দুটি নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি করছে। ফলে পাইকারি ও খুচরা পর্যায়ে দাম বাড়ছে। আর ভোক্তাদের এই পণ্য দুটি কিনতে রীতিমতো হিমশিম খেতে হচ্ছে।

তারা আরও বলেন, নিত্যপণ্যের বাজার এখন অসাধু সিন্ডিকেটের নিয়ন্ত্রণে। পেঁয়াজে নৈরাজ্যের পর চাল, আলু ও ভোজ্যতেল নিয়ে সিন্ডিকেটের কারসাজি চলছে। হু হু করে বৃদ্ধি পাচ্ছে মুল্য। এসব পণ্যের দাম নাগালে রাখতে সরকার বার বার মূল্য নির্ধারণ করে দিলেও তা বাজারে কার্যকর হচ্ছে না। বাজার নিয়ন্ত্রণে সকল প্রচেষ্টা ব্যর্থ হচ্ছে বাণিজ্য মন্ত্রনালয়ের। ব্যবসায়ীরা অতিরিক্ত মূল্যেই এসব ভোগ্যপণ্য বিক্রি করছেন।

ন্যাপ নেতারা বলেন, বাজার নিয়ন্ত্রণে সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণ অতি জরুরি। বর্তমানে তেল ও চালসহ নিত্যপণ্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির কোনো কারণ নেই। এমনিতেই করোনায় অনেকের আয় কমে গেছে, কেউ বেকার হয়ে পড়েছেন। এ অবস্থায় মরার ওপর খাড়ার ঘায়ের মতো নেমে এসেছে নিত্যপণ্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি। এতে করে মধ্যবিত্ত ও সীমিত আয়ের মানুষ চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছে।

কেএইচ/এমএইচআর/এমএস