বিয়ের দুদিন পরই পাওয়া গেল নববধূর ঝুলন্ত মরদেহ

গাইবান্ধা সদর উপজেলায় সাদিয়া আক্তার (১৮) নামে এক নববধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। বিয়ের মাত্র দুদিন পর তার গলায় ওড়না পেঁচানো ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে এটি আত্মহত্যা বলে জানা গেছে। সোমবার (২৫ জানুয়ারি) সকালে সদর উপজেলার রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের তিনদহ পূর্বপাড়া গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে। সাদিয়া আক্তার তিনদহ গ্রামের মৃত আব্দুস সালামের মেয়ে। গাইবান্ধা সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জান্নাতি খাতুন বলেন, ‌‘মাত্র দুদিন আগে সাদিয়ার বিয়ে হয় বাদিয়াখালি ইউনিয়নের আবু তাহেরের সঙ্গে। গতকাল (রোববার) আবু তাহের সাদিয়াকে নিয়ে শ্বশুরবাড়ি (সাদিয়ার বাবার বাড়ি) আসেন। সোমবার সকাল ৯টার দিকে দিকে আবু তাহের সাদিয়াকে রেখে ঘরের বাইরে যান। ঘণ্টাখানেক পরে ফিরে এসে সাদিয়ার ঘরের দরজা বন্ধ পান। এ সময় জানালা দিয়ে বিছানার পাশে তার গলায় ফাঁস দেয়া মরদেহ দেখা যায়।’ পরে তাকে উদ্ধার করে গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এ বিষয়ে রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। সেখানে গিয়ে শুনলাম তাহেরের স্ত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। এই মুহূর্তে এর বেশি কিছু আমি বলতে পারব না।’ জাহিদ খন্দকার/এমএইচআর

বিয়ের দুদিন পরই পাওয়া গেল নববধূর ঝুলন্ত মরদেহ

গাইবান্ধা সদর উপজেলায় সাদিয়া আক্তার (১৮) নামে এক নববধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। বিয়ের মাত্র দুদিন পর তার গলায় ওড়না পেঁচানো ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে এটি আত্মহত্যা বলে জানা গেছে।

সোমবার (২৫ জানুয়ারি) সকালে সদর উপজেলার রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের তিনদহ পূর্বপাড়া গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে। সাদিয়া আক্তার তিনদহ গ্রামের মৃত আব্দুস সালামের মেয়ে।

গাইবান্ধা সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জান্নাতি খাতুন বলেন, ‌‘মাত্র দুদিন আগে সাদিয়ার বিয়ে হয় বাদিয়াখালি ইউনিয়নের আবু তাহেরের সঙ্গে। গতকাল (রোববার) আবু তাহের সাদিয়াকে নিয়ে শ্বশুরবাড়ি (সাদিয়ার বাবার বাড়ি) আসেন। সোমবার সকাল ৯টার দিকে দিকে আবু তাহের সাদিয়াকে রেখে ঘরের বাইরে যান। ঘণ্টাখানেক পরে ফিরে এসে সাদিয়ার ঘরের দরজা বন্ধ পান। এ সময় জানালা দিয়ে বিছানার পাশে তার গলায় ফাঁস দেয়া মরদেহ দেখা যায়।’

পরে তাকে উদ্ধার করে গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। সেখানে গিয়ে শুনলাম তাহেরের স্ত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। এই মুহূর্তে এর বেশি কিছু আমি বলতে পারব না।’

জাহিদ খন্দকার/এমএইচআর