ভারতে বর্ষবরণের পার্টিতে কারফিউ জারি

নয়াদিল্লি, ৩১ ডিসেম্বর- করোনার থাবা বর্ষশেষ ও নিউ ইয়ারের পার্টিতেও। ভারতের দিল্লি, মুম্বাই ও চেন্নাইয়ের মতো শহরগুলোতে থাকছে রাতের কারফিউ। বৃহস্পতি ও শুক্রবার রাত এগারোটা থেকে ভোর ছয়টা পর্যন্ত কারফিউ বহাল থাকবে। ফলে এবার বর্ষবরণে থাকছে না হইচই, পার্টি সব বন্ধ। অনেক শহরে রাত দশটা বা এগারোটায় হোটেল, রেস্তোরাঁ বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে। করোনার নতুন স্ট্রেইন ভারতে চলে আসায় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

ভারতে বর্ষবরণের পার্টিতে কারফিউ জারি
ছবিঃ DNA india

তবে ব্যতিক্রম হলো কলকাতা, চণ্ডিগড়ের মতো হাতে গোণা কয়েকটি শহর। কলকাতায় যেমন কারফিউ বা কোনো কড়াকড়ি নেই। চণ্ডিগড়েও তাই। ফলে কলকাতায় পার্ক স্ট্রিটের মতো এলাকায় হইচই করে গভীর রাতে বাড়ি ফেরার ক্ষেত্রে কোনো সমস্যা নেই। কিন্তু দিল্লি সহ অন্য শহরে তা হবে না। সাধারণত কনট প্লেস, ইন্ডিয়া গেটের মতো জায়গায় রাত বারোটা পর্যন্ত বর্ষশেষ উদযাপন করেন দিল্লিবাসী।

কিন্তু এবার ওই সব জায়গা মানুষের নাগালের বাইরে থাকবে। মুম্বাইতেও বড় সমাবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। রাতে কারফিউ থাকবে। তবে আত্মীয় বা বন্ধুর বাড়ি যাওয়া যাবে। সেখানে জমায়েত ছোট রাখতে হবে। পাবলিক প্লেসে একসঙ্গে চারজনের বেশি মানুষ থাকতে পারবেন না। সেটাও মাস্ক পরে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে। বেঙ্গালুরুতে বৃহস্পতিবার দুপুর থেকেই কড়াকড়ি শুরু হয়ে গেছে।

চেন্নাইতে মেরিনাসহ সব বিচ বন্ধ করে দেয়া হবে। হোটেল, রেস্তোরাঁ রাত দশটার মধ্যে বন্ধ করে দিতে হবে। চেন্নাইতে নতুন ধরনের ভাইরাসে একজন আক্রান্ত হয়েছেন। কলকাতায় নতুন ধরনের করোনাভাইরাসে একজন আক্রান্ত হলেও নতুন বছরের অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে কোনো কড়াকড়ি করা হচ্ছে না। সেখানে মধ্যপন্থা নিয়ে এগোতে বলা হয়েছে।

সূত্র : ডয়চে ভেলে