মালয়েশিয়ায় লকডাউনের মেয়াদ বাড়ল

মালয়েশিয়ায় করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের পরিস্থিতি মোকাবিলায় আরও ১৪ দিনের জন্য কন্ডিশনাল মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডারের (সিএমসিও) মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে।

মালয়েশিয়ায় লকডাউনের মেয়াদ বাড়ল

এর আগে জারি করা সিএমসিও’র মেয়াদ শেষ হচ্ছে ৩১ ডিসেম্বর।

স্থানীয় সময় সোমবার (২৮ ডিসেম্বর) দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী দাতুক সেরি ইসমাইল সাবরি বিন ইয়াকুব কোভিড-১৯-এর নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, মালয়েশিয়ায় করোনার তৃতীয় ঢেউয়ে প্রকোপ বাড়তে থাকায় লকডাউনের বিধিনিষেধ বাড়ানো হয়েছে। সংক্রমণরোধে শর্তসাপেক্ষে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পরামর্শ অনুযায়ী ১৪ জানুয়ারি পর্যন্ত কুয়ালালামপুর, সেলাঙ্গর ও সাবাহ কন্ডিশনাল মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার সিএমসিও বহাল থাকবে। এ সময়ে সরকার ঘোষিত অন্যান্য বিধিনিষেধ আগের মতো চলমান থাকবে।

তবে, সেলাঙ্গর প্রদেশের সাবাক বার্নাম, হুলু সেলাঙ্গর ও কুয়ালা সেলাঙ্গর ব্যতীত অন্য জেলায় আগামী ১৪ জানুয়ারি পর্যন্ত সিএমসিও বহাল থাকবে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, দেশটির সেলাঙ্গর প্রদেশে গত দুই সপ্তাহে ২৯ হাজার ২৭২ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত করা হয়েছে। তারমধ্যে নতুন করে সেলাঙ্গরের আরও ৯টি জেলায় ৮ হাজার ১৯৪ জন শনাক্ত হওয়ায় এ জেলাগুলোকে রেডজোন ঘোষণা করেছে দেশটির সরকার।

এছাড়াও, রাজধানী কুয়ালালামপুরে গত দুই সপ্তাহে ১২ হাজার ৪৯৪ জনের দেহে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে। একইসঙ্গে কুয়ালালামপুরে নতুন ক্লাস্টারের সংখ্যাও দ্রুত বৃদ্ধি পেয়েছে বলে জানায় দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

অন্যদিকে দেশটির অন্যান্য রাজ্যের জেলা, যেমন সেরেম্বান, জহুর বারু, বাতু পাহাত, কুলাই এবং পুলাও পিনাং রাজ্যের মুকিম ১২ (বারাত দায়া) ও মুকিম ১৩ (তিমুর লাউত) ১৪ জানুয়ারি পর্যন্ত সিএমসিও বহাল থাকবে।

এদিকে দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৫৯৪ জন। সব মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৬ হাজার ৬৯০ জন। এ পর্যন্ত করোনায় মারা গেছেন ৪৫৫ জন। 

সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন ৮৫ হাজার ৫৯২ জন। তবে দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়ে কোনো বাংলাদেশি মারা যাওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।