মুজিবনগরে স্বাধীনতা সড়কের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

এক কোটি চার লাখ টাকা ব্যয়ে মুজিবনগর-কলকাতা স্বাধীনতা সড়কের নির্মাণকাজের উদ্বোধন করা হয়েছে। সোমবার (৮ ফেব্রুয়ারি) এলজিইডির তত্ত্বাবধানে এ নির্মাণকাজের উদ্বোধন করেন মুজিবনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সুজন কুমার।

মুজিবনগরে স্বাধীনতা সড়কের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন
মুজিবনগরে স্বাধীনতা সড়কের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ সড়কের উদ্বোধন করার কথা রয়েছে।

বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী অপরদিকে বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের বন্ধুত্বের ৫০ বছর পূর্তি। এই শুভক্ষণে দুদেশের প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করতে যাচ্ছেন মুজিবনগর-কলকাতা স্বাধীনতা সড়ক। আর এই সড়ক নির্মাণ উপলক্ষে বাংলাদেশের মুজিবনগরে ও ভারতের হৃদয়পুরে স্থাপন করা হচ্ছে ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট।

দিনক্ষণ ঠিক থাকলে আগামী ২৬ মার্চ যৌথভাবে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ সড়ক উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

ইমিগ্রেশন চেকপোস্টের সম্ভাব্যতা যাচাই ও ঐতিহাসিক মুজিবনগরে স্বাধীনতা সড়ক (মুজিবনগর-কলকাতা) পরিদর্শন করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পাঁচজনের একটি প্রতিনিধি দল।  

আরও পড়ুনঃ জীবননগরে বিয়ের প্রলোভনে দেহভোগ,স্কুলছাত্রীর অনশন, এলাকাবাসীর বিক্ষোভ মিছিল ও মানবন্ধন

গত ১৭ জানুয়ারি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিরাপত্তা ও ইমিগ্রেশনের অতিরিক্ত সচিব আব্দুল্লাহ আল মাসুদের নেতৃত্বে স্বরাষ্ট্র, পরারাষ্ট্র ও এনবিআর, স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল মুজিবনগর ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট স্থাপনের সম্ভাব্যতা যাচাই করেছেন।  

এছাড়া স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত এই সড়কটি দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর কাছেই গুরুত্বপূর্ণ। স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে দুদেশের প্রধানমন্ত্রী সড়কটির নাম ঠিক করেছেন ‘স্বাধীনতা সড়ক’।
স্বাধীনতা সড়কটি মানসম্মতভাবে নির্মাণ করার লক্ষ্যে গত ১৪ জানুয়ারি মুজিবনগর পরিদর্শন করেছেন।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানান, সড়কটি চালু ও ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট স্থাপন করতে স্বরাষ্ট্র ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

সে চিঠির আলোকে ইতোমধ্যে সংশ্লিষ্টদের করণীয় নির্ধারণে সরকারি দফতরগুলোতে পৃথক চিঠি দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ ও সুরক্ষা সেবা বিভাগ। মুজিবনগর-কলকাতা স্বাধীনতা সড়ক চালুর নিমিত্তে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সরকারের সংশ্লিষ্ট দফতরগুলোকে অবহিত করা হয়েছে।

এদিকে মুজিবনগর থেকে কলকাতা যাতায়াতের ঘোষণা আসার পর থেকে মেহেরপুরের সাধারণ মানুষ আনন্দের পাশাপাশি এখন দিন গুণছেন সেই মাহেন্দ্র ক্ষণটির জন্য