“মুজিবনগর বিশ্ববিদ্যালয়” অনুমোদন হওয়ায় আনন্দ শোভাযাত্রা

মেহেরপুরে মুজিবনগর বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদন দেওয়ায় আনন্দ শোভাযাত্রা করেছে মেহেরপুরের শিক্ষা পরিবার। সোমবার দুপুরের দিকে শহরের শহীদ সামসুজ্জোহা পার্ক থেকে শোভাযাত্রাটি বের করা হয়। বাদ্যযন্ত্রের তালে তালে শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

“মুজিবনগর বিশ্ববিদ্যালয়” অনুমোদন হওয়ায় আনন্দ শোভাযাত্রা
মুজিবনগর বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদন দেওয়ায় আনন্দ শোভাযাত্রা করেছে মেহেরপুরের শিক্ষা পরিবার

এতে নেতৃত্ব দেন জেলা মাধ্যমিক  শিক্ষা অফিসার মাহফুজুল হোসেন। উপস্থিত ছিলেন আর. আর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম,উজলপুর মাধ্যমিক বিদ্যারয়ের প্রধান শিক্ষক ইদ্রিস আলী, যাদুখালী স্কুল এন্ড কলেজের প্রধান শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান সহ জেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা।

উল্লেখিত, ১৯ ডিসেম্বর বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বাক্ষরিত একটি চিঠিতে মেহেরপুরে “মুজিবনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের” অনুমোদন দেন। এতে মেহেরপুর বাসি খুবই আনন্দিত গর্বিত। তাই নানা ভাবে  প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জ্ঞ্যাপন ও অভিন্দন জানাচ্ছেন মেহেরপুরের মানুষ। দেশের একেবারে পশ্চিমদিকে অবস্থিত পশ্চাৎপদ জেলা হিসাবে মেহেরপুরে এতদিন ছিল অবহেলিত। স্বাধীনতার স্মৃতিবিজোড়িত এই জেলাটিতে একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের দাবি ছিলো দীর্ঘদিনের। তবে সে অপেক্ষার পালা শেষ। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে মেহেরপুর জেলায় হতে চলেছে “মুজিবনগর বিশ্ববিদ্যালয়”। 

এখানে একটি পূর্ণাঙ্গ বিশ^বিদ্যালয় স্থাপনে অনুমোদন দেওয়ায় উচ্ছসিত জেলার মানুষ। শিক্ষাবিদ, শিক্ষার্থী ও শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা তাদের আনন্দের বহিঃপ্রকাশ হিসাবে ও ছাত্র-ছাত্রীদের উচ্চ শিক্ষার পথ সুগম হওয়ায় খুশির বন্যা বইছে মেহেরপুরে। বিশ^বিদ্যালয়টি স্থাপন সম্পন্ন হলে উচ্চ শিক্ষার দার খুলে যাবে, বাড়বে শিক্ষার হার। সারাদেশ থেকে মুজিবনগর বিশ^বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করতে আসা শিক্ষার্থীদের পদচারনায় মুখরিত হবে এ জেলা। 

সুত্রঃ একুশে টিভি