রাবি'র ছাত্রীর পাশে দাঁড়ালেন ইউএনও

ময়মনসিংহের ভালুকায় কনা আক্তার নামে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া অসহায় এক শিক্ষার্থীকে শিক্ষা সহায়তা দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সালমা খাতুন। গতকাল বৃহস্পতিবার ২৮ জানুয়ারি দুপুরে তিনি ওই শিক্ষার্থীর হাতে নগদ ১০হাজার টাকা তুলে দেন।

রাবি'র ছাত্রীর পাশে দাঁড়ালেন ইউএনও

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক উমর হায়াৎ খান নঈম, বিশিষ্ট ঠিকাদার মাহাবুবুল আলম বাচ্চু ওই সময় উপস্থিত ছিলেন।

জানা যায়, উপজেলার ভরাডোবা ইউনিয়নের পুরুড়া গ্রামের ভ্যানচালক মো. কাজল খানের মেয়ে কনা আক্তার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স দ্বিতীয় বর্ষে অধ্যয়নরত। বাড়িতে হাঁস-মুরগি পালন, ভ্যানচালক বাবার সামান্য আয় এবং আত্মীয়দের সহায়তায় অতিকষ্টে চলছে কনা আক্তার আর তার অপর তিন ভাই-বোনের পড়ার খরচ। কনার অপর তিন ভাই বোনদের একবোন এ বছর উপজেলার ধলীয়া বহুলী স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করছে। অপর ভাই একই কলেজে প্রথম বর্ষে অধ্যয়নরত। আরেক ভাই একটি কওমী মাদরাসায় হেফজ বিভাগে পড়ছে। বিষয়টি জানতে পেরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওই শিক্ষার্থীতে ১০হাজার টাকা আর্থিক সাহায়তা দেন। 

শিক্ষা সহায়তা পেয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকতাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন কনা আক্তার। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সালমা খাতুন বলেন, 'বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ওই ছাত্রীর আর্থিক দুর্দশার কথা জানতে পেরে উপজেলা পরিষদের মাধ্যমে তাকে ১০হাজার টাকার শিক্ষা সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।'