সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নির্দেশনা

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় খুলে দেওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকতে নির্দেশনা এবং কীভাবে বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের ক্লাস চলবে তার গাইডলাইন পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। গাইডলাইনে বলা হয়, বড় বেঞ্চে ২ জন শিক্ষার্থী বসবে। আর শিক্ষার্থীদের শারীরিক দূরত্ব রাখতে হবে এক মিটার। পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে আনার গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে গাইডলাইনে। এছাড়া শিক্ষার্থীদের শিফট করে বিদ্যালয়ে আনতে হবে।

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়  নির্দেশনা
ছবিঃ সংগৃহীত

রোববার (২৪ জানুয়ারি) রাতে নির্দেশনা ও গাইডলাইন বিদ্যালয় পর্যায়ে পৌঁছে দেওয়া হয়। এতে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের জারিকৃত নির্দেশনা এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, ইউনেস্কো, ইউনিসেফ, বিশ্বব্যাংক এবং আন্তর্জাতিক নির্দেশনা অনুসরণ করে এই নির্দেশনা প্রণয়ন করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সবাইকে এই নির্দেশনা মানতে হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে বিদ্যালয় খোলার পূর্ব প্রস্তুতি সম্পন্ন করার আদেশ জারি করা হয় গত ২৩ জানুয়ারি মধ্য রাতে। একইসঙ্গে প্রকাশ করা হয় বিদ্যালয় পরিচালনার গাইডলাইন। স্কুল, কলেজ, উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে বলা হয় যেকোনও সময় বিদ্যালয় খোলার জন্য।

গাইডলাইনে বলা হয়, ৫ ফুটের ছোট বেঞ্চে বসবে একজন শিক্ষার্থী আর ৫ ফুটের চেয়ে বড় বেঞ্চে (৬ ফুট) বসবে দু’জন শিক্ষার্থী। শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে ৩ ফুট। তিন ফুট দূরত্ব বজায় রাখতে বেঞ্চের একটি কলাম ব্যবহার না করার নির্দেশনা রয়েছে।

প্রাথমিকের গাইডলাইনে হাত ধোয়া, মাস্ক ব্যবহার, তাপমাত্রা মাপা, দুইবার শিক্ষার্থীর স্বাস্থ্য পরীক্ষার ব্যবস্থা রাখতে হবে। শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও কর্মচারী সবাইকে মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব। শারীরিকভাবে অসুস্থ শিক্ষার্থী, শিক্ষক-কর্মচারী বিদ্যালয়ে যাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। সন্তানসম্ভবা নারী শিক্ষকদের কোনোভাবেই বিদ্যালয়ে আনা যাবে না।