সালিশ শেষে ফেরার পথে হামলা আহত সেই ইমামের মৃত্যু

নড়াইলে জমি নিয়ে বিরোধের বলি হলেন মো. আল আমিন শেখ (২৮) নামে এক ইমাম। মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে অবশেষে শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। এর আগে গত মঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) সালিশ শেষে ফেরার পথে প্রতিপক্ষের হামলায় গুরুতর আহন তিনি। প্রথমে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢামেক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। নিহত আল আমিন শেখ পেশায় একজন ইমাম। তিনি কালিয়া উপজলার পাঁচগ্রাম ইউনিয়নের মহিষখোলা গ্রামের আবুল শেখের ছেলে। কালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ কনি মিয়া জানান, বসতভিটার সীমানা নিয়ে মহিষখোলা গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য মাহবুবুর রহমানের সঙ্গে আল আমিন শেখের পরিবারের বিরোধ চলছিল। গত মঙ্গলবার এ নিয়ে সালিশ বসে। সালিশ শেষে বিকেলে বাড়ি ফেরার পথে প্রতিপক্ষরা হামলা চালায়। এতে আল আমিনসহ আরও তিনজন আহত হন। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আল আমিনের মৃত্যু হয়। জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) জসিম উদ্দিন বলেন, ‘হামলার ঘটনার পর ২৪ জনের বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করা হয়েছিল। ওই মামলাটি এখন হত্যা মামলা হিসেবে গ্রহণ করে তদন্ত করা হবে। হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতারে পুলিশ তৎপর রয়েছে। হাফিজুল নিলু/এএএইচ

সালিশ শেষে ফেরার পথে হামলা আহত সেই ইমামের মৃত্যু

নড়াইলে জমি নিয়ে বিরোধের বলি হলেন মো. আল আমিন শেখ (২৮) নামে এক ইমাম। মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে অবশেষে শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

এর আগে গত মঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) সালিশ শেষে ফেরার পথে প্রতিপক্ষের হামলায় গুরুতর আহন তিনি। প্রথমে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢামেক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

নিহত আল আমিন শেখ পেশায় একজন ইমাম। তিনি কালিয়া উপজলার পাঁচগ্রাম ইউনিয়নের মহিষখোলা গ্রামের আবুল শেখের ছেলে।

কালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ কনি মিয়া জানান, বসতভিটার সীমানা নিয়ে মহিষখোলা গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য মাহবুবুর রহমানের সঙ্গে আল আমিন শেখের পরিবারের বিরোধ চলছিল। গত মঙ্গলবার এ নিয়ে সালিশ বসে। সালিশ শেষে বিকেলে বাড়ি ফেরার পথে প্রতিপক্ষরা হামলা চালায়। এতে আল আমিনসহ আরও তিনজন আহত হন। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আল আমিনের মৃত্যু হয়।

জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) জসিম উদ্দিন বলেন, ‘হামলার ঘটনার পর ২৪ জনের বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করা হয়েছিল। ওই মামলাটি এখন হত্যা মামলা হিসেবে গ্রহণ করে তদন্ত করা হবে। হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতারে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

হাফিজুল নিলু/এএএইচ