মুম্বাইয়ের পতিতালয়ে পাচার হওয়া তরুণী মহেশপুর সীমান্তে আটক হয়ে বাড়ি ফিরলেন

ভারতে এক মাস অবস্থানের পর ফেরার পথে সীমান্তে আটক হয়েছেন এক বাংলাদেশি তরুণী; পরে আদালত থেকে জামিন নিয়ে তিনি খুলনায় নিজ বাড়ি ফিরেছেন।

মুম্বাইয়ের পতিতালয়ে পাচার হওয়া তরুণী মহেশপুর সীমান্তে আটক হয়ে বাড়ি ফিরলেন
ফাইল ছবি

২২ বছর বয়সী এই তরুণী ‘এক মাস আগে পাচার হয়ে মুম্বাইয়ের একটি পতিতালয়ে’ আটক ছিলেন বলে জানিয়েছেন, বলছে বিজিবি। 

বিজিবির ঝিনাইদহের খালিশপুরের-৫৮ ব্যাটালিয়নের পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল কামরুল আহসান বলেন, শনিবার ভারতের রানাঘাট বিএসএফ ক্যাম্প ওই তরুণীকে আটক করে  মহেশপুর উপজেলার মাটিলা বিজিবি ক্যাম্পে কাছে হস্তান্তর করে। তারপর  বিজিবি পাসপোর্ট আইনে মামলা দিয়ে তাকে মহেশপুর থানায় সোপর্দ করে।

রোববার (০২ মে) মহেশপুর থানা পুলিশ ওই নারীকে আদালতে পাঠানোর পর জামিন আবেদন করলে আদালত তার জামিন মঞ্জুর করে। এদিকে ভারতের করোনার অন্যতম মহামারি এলাকা মুম্বাই থেকে দেশে আনার পর কোয়ারেন্টাইনে না রাখাটা ঝুঁকিপুর্ণ বলে মনে করছে স্বাস্থ্যবিভাগ।

ঝিনাইদহ জেলা আদালতের জিআরও এসআই আল মামুন জানান, “আদালত এই তরুণীকে জামিনে মুক্তি দিয়েছে। পরে তিনি খুলনায় তার বাড়ির উদ্দেশ্যে চলে যান।

মানবাধিকার সংগঠন জাস্টিস এন্ড কেয়ার বাংলাদেশ-এর ঝিনাইদহ জেলা সমন্বয়ক আব্দুর রহমান জানান, তাদের এক প্রতিনিধি ওই তরুণীকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন। এতে জানা যায়, তাদের বাড়ি খুলনা শহরের খানজাহান আলী থানা এলাকায়।

সৌদি আরব পাঠানোর কথা বলে একটি দালাল চক্র তাকে ঢাকায় নিয়ে যায়। এরপর তাকে অচেতন করে ফেলে। জ্ঞান ফিরলে জানতে পারেন ভারতের মুম্বাইয়ের একটি পতিতালয়ে তিন লাখ টাকায় তাকে বিক্রি করা হয়েছে।

রহমান আরও বলেন, মাস খানেক থাকার পর পালিয়ে কলকাতায় আসেন ওই তরুণী। সেখান থেকে দালাল ধরে সীমান্ত এলাকায় আসেন। সীমান্ত পার হওয়ার সময় বিএসএফ’র হাতে ধরা পড়েন।