নিজের স্ত্রীকে নিয়ে পালানোয় পরকীয়া প্রেমিকের স্ত্রীকে খুন

নাটোরের বড়াইগ্রামে স্ত্রীর পরকীয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিশোধ নিতে প্রেমিক রাশেদের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে হত্যা করেন স্বামী মতিউর। এ ঘটনায় মতিউরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (১১ জুন) নাটোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এসপি) তারেক জুবায়ের এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান। গ্রেফতার মতিউর বড়াইগ্রামের ভানীপুর গ্রামের আকবর হোসনের ছেলে। এসপি তারেক জুবায়ের জানান, ভবানীপুর গ্রামের আকবর হোসেনের স্ত্রী আসমা বেগমের পরকীয়ার সম্পর্ক গড়ে উঠে প্রতিবেশী মৃত মজির উদ্দিনের ছেলে রাশিদুল ইসলাম রাশেদের সঙ্গে।

নিজের স্ত্রীকে নিয়ে পালানোয় পরকীয়া প্রেমিকের স্ত্রীকে খুন

নাটোরের বড়াইগ্রামে স্ত্রীর পরকীয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিশোধ নিতে প্রেমিক রাশেদের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে হত্যা করেন স্বামী মতিউর। এ ঘটনায় মতিউরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (১১ জুন) নাটোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এসপি) তারেক জুবায়ের এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান।

গ্রেফতার মতিউর বড়াইগ্রামের ভানীপুর গ্রামের আকবর হোসনের ছেলে।

এসপি তারেক জুবায়ের জানান, ভবানীপুর গ্রামের আকবর হোসেনের স্ত্রী আসমা বেগমের পরকীয়ার সম্পর্ক গড়ে উঠে প্রতিবেশী মৃত মজির উদ্দিনের ছেলে রাশিদুল ইসলাম রাশেদের সঙ্গে। এ নিয়ে এলাকায় সালিস বসলেও থেমে থাকেনি তাদের এ অবৈধ সম্পর্ক। এরপর গত ৩১ মে রাশেদ আসমাকে নিয়ে পালিয়ে যান।

এরপর ২ জুন সন্ধ্যার পরে রাশেদের বাড়ির সবাই মাদারের পালা শুনতে যান। এসময় রাশেদের স্ত্রী শাহিনুর খাতুন বাড়িতে তার এক বছরের চেলে সামিউলকে নিয়ে ঘুমিয়ে ছিলেন। এ সুযোগে আসমার স্বামী মতিউর হাসুয়া নিয়ে ঘরে ঢুকে ঘুমন্ত শাহিনুরকে হত্যা করেন।

এ ঘটনায় শাহিনুর খাতুনের ভাই নুর আলী বাদী হয়ে ৫ জুন অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে মামলা করেন।

মামলার পর পুলিশ এ হত্যার রহস্য উদ্ঘাটনে প্রথমে শাহিনুর খাতুনের স্বামী রাশেদ ও প্রেমিকা আসমাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। তাদের দেয়া তথ্য ও তথ্য প্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে গতকাল মতিউরকে গ্রেফতার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি জানান, তার স্ত্রী আসমা খতুনের সঙ্গে রাশেদের পরকীয়ায় ক্ষিপ্ত হয়েই তিনি রাশেদের স্ত্রী শাহীনুরকে হত্যা করেন। পরে তার দেয়া তথ্যে পুলিশ হত্যার কাজে ব্যবহৃত হাসুয়াটি উদ্ধার করে।