চুয়াডাঙ্গায় মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত দুই বন্ধুকে পাশাপাশি দাফন

নিহত সজিব ও মারুফ

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত দুই বন্ধু সজিব ও মারুফকে পাশাপাশি দাফন করা হয়েছে। সোমবার (২৫ অক্টোবর) রাতে উপজেলার নতিডাঙ্গা দক্ষিণপাড়া কবরস্থানে তাদের দাফন করা হয়। উপজেলার বাড়াদি ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. ওবাইদুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

 

তিনি বলেন, ময়নাতদন্ত ছাড়াই বিকেলে লাশবাহী গাড়িতে দুজনের মরদেহ নিজ গ্রাম নতিডাঙ্গাতে পৌঁছালে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। তিন ভাইয়ের মধ্যে মারুফ ছোট এবং দুই ভাইয়ের মধ্যে সজিব ছোট। সন্তানদের হারিয়ে তাদের বাবা-মা যেন পাগল প্রায়। বার বার মূর্ছা যাচ্ছেন তারা। তারা দুজনই সপ্তগ্রাম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

 

ইউপি সদস্য মো. ওবাইদুল হক আরও বলেন,  রাত পৌনে ৮টার দিকে জানাজার পর মারুফের মরদেহ গ্রাম্য করবস্থানে দাফন করা হয়। পরে রাত ৯টার দিকে মারুফের কবরের পাশেই সজিবের মরদেহ দাফন করা হয়।

 

এর আগে বেলা পৌনে ১১টার দিকে চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার হাজরাহাটি পটলা পীরের মাজারের কাছে দুই মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে দুইজন নিহত এবং তিনজন আহত হন। এ সময় হতাহতদের তাৎক্ষণিক পরিচয় না পাওয়া গেলেও দুপুরে পরিবারের সদস্যরা তাদেরকে শনাক্ত করেন।

নিহতরা হলেন- আলমডাঙ্গা উপজেলার বাড়াদি ইউনিয়নের নতিডাঙ্গা গ্রামের দক্ষিণপাড়ার আকুব্বর হোসেনের ছেলে মারুফ হোসেন (২০) একই এলাকার শরিফের ছেলে সজিব (২০)।

 

আহতরা হলেন- আলমডাঙ্গা উপজেলার বাড়াদি ইউনিয়নের আঠারোখাদা গ্রামের বিজয় মণ্ডলের ছেলে মদন কুমার দাস (৩৫), একই উপজেলার জেহালা গ্রামের ঠান্ডু রহমানের ছেলে আলমসাধু চালক আজিম উদ্দিন (৫০) এবং চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার শংকরচন্দ্র ইউনিয়ের কুকিয়া চাঁদপুর গ্রামের কুরবান আলীর ছেলে শাহিন আলী (২২)।