জন্মের পর থেকেই মিলবে জাতীয় পরিচয়পত্র

জন্মের পর থেকেই বাংলাদেশের নাগরিকদের জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) দেওয়ার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে দায়িত্ব দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

 

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) দুপুরে সচিবালয়ে গণমাধ্যম কেন্দ্রে বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরাম (বিএসআরএফ) আয়োজিত ‘বিএসআরএফ সংলাপে’ এ তথ্য জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।
সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মাসউদুল হকের সঞ্চালনায় সংলাপে সভাপতিত্ব করেন তপন বিশ্বাস।

মন্ত্রী বলেন, এত দিন আমাদের নির্বাচন কমিশন ১৮ বছরের পর থেকে নাগরিকদের এনআইডি দিত। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শূন্য বয়স থেকে (জন্মের পর) এনআইডি চালু করতে পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে সে দায়িত্ব দিয়েছেন তিনি। তবে এনআইডি সেবা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে আসার ব্যাপারে কিছু আইনি জটিলতা আছে। সেটা দেখার জন্য আইন মন্ত্রণালয়ে ফাইল পাঠানো হয়েছে। আইন মন্ত্রণালয় আইনগত দিক যাচাই-বাছাই করে দেখছে।

তিনি বলেন, আমাদের পরিকল্পনা চলছে, কীভাবে সুষ্ঠুভাবে এটাকে এগিয়ে নিয়ে যাব। হয়ত আরও কিছু দিন সময় লাগবে।

 

মন্ত্রী বলেন, আমরা পাসপোর্টে বৈপ্লবিক পরিবর্তন এনেছি। আমরা এমআরপি করেছিলাম। এখন সেটা সকলের হাতেহাতে। এরপর পাসপোর্টকে আরও আধুনিক করতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী জার্মানির একটি কোম্পানির মাধ্যমে ই-পাসপোর্টের কাজ চলছে। এশিয়ার অনেক দেশই এ উদ্যোগ নেয়নি।

 

এ সময় সংগঠনের যুগ্ম সম্পাদক মেহদী আজাদ মাসুম, সাংগঠনিক সম্পাদক আকতার হোসেন, অর্থ সম্পাদক মো. শফিইল্লাহ সুমন, দফতর সম্পাদক মো. মোসকায়েত মাশরেক, প্রশিক্ষণ ও গবেষণা সম্পাদক তাওহীদুল ইসলাম, কার্যনির্বাহী সদস্য ইসমাইল হোসাইন রাসেল, শাহজাহান মোল্লা, হাসিফ মাহমুদ শাহ, শাহাদাত হোসেন রাকিব, বেলাল হোসেন, রুবায়েত হাসান উপস্থিত ছিলেন।