আলমডাঙ্গায় দুই বান্ধবীকে বাঁশবাগানে নিয়ে ধর্ষণ দুই বন্ধুর

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলা ওসমানপুর গ্রামে দুই বন্ধুর ধর্ষণের শিকার হয়েছে অপ্রাপ্ত বয়সী দুই বান্ধবী। ধর্ষণের শিকার দুই বান্ধবী আলমডাঙ্গা উপজেলার একটি মাদরাসার সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী। মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) দুপুরে অভিযুক্ত ধর্ষক দুই বন্ধু আশিক ও নিশানের বিরুদ্ধে আলমডাঙ্গা থানায় ধর্ষণ মামলা করেছে দুই বান্ধবী। এদিন তাদের ডাক্তারী পরীক্ষা শেখ করা হয়েছে।

 

আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম জানান, দুই বন্ধু তাদের দুই প্রেমিকাকে ধর্ষণ বলে অভিযোগ পেয়েছি। তারা চারজনই অপ্রাপ্ত বয়স্ক। তিনি আরো জানান, আলমডাঙ্গা উপজেলার ওসমানপুর গ্রামের ইয়াকিন আলীর ছেলে আশিক (১৭) ও তার বন্ধু একই গ্রামের আনারুল ইসলামের ছেলে নিশান (১৭) দুই বান্ধবীর সাথে পরিচয় হয় মাস চারেক আগে।

 

সেই থেকে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। রবিবার (৭ নভেম্বর) রাত ৮টার দিকে নিশান মোবাইল ফোনে দুই বান্ধবীকে তাদের কাছে ডেকে নেয়। তারা বাড়ির বাইরে বের হলে নিশান তাদের মোটরসাইকেলে উঠিয়ে নিয়ে যায় উপজেলার হারদী মাঠের নির্জন একটি বাঁশ বাগানে। সেখানে আগে থেকেই অবস্থান করছিলো নিশানের বন্ধু আশিক। তারা দুই বন্ধু বিয়ের মিথ্যে আশ্বাস দিয়ে তাদের নিজ নিজ প্রেমিকাকে উপর্যুপরি ধর্ষণ করে। পরে গভীর রাতে নিশান ধর্ষণের শিকার দুই বান্ধবীকে মোটরসাইকেলযোগে তাদের বাড়ির কাছাকাছি পৌঁছে দিয়ে দ্রুত সেখান থেকে চলে যায়।

 

দুই বান্ধবী আলমডাঙ্গা থানায় তাদের নিজ নিজ প্রেমিকের নামে ধর্ষণ মামলা দায়ের করে। পরে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য তাদের চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

 

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) ডা. এএসএম ফাতেহ্ আকরাম বলেন, মঙ্গলবার দুপুরে দুই ভিকটিমের ধর্ষণের আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। বুধবার বয়স নির্ধারণের জন্য পরীক্ষা-নিরীক্ষার করা হবে।