চুয়াডাঙ্গায় বিষ মেশানো কোমল পানীয় খাইয়ে শিশুকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ

চুয়াডাঙ্গায় বকেয়া টাকা না দেয়ায় জোরপূর্বক বিষ মেশানো কোমল পানীয় খাইয়ে আজহারুল ইসলাম (১২) নামে এক শিশুকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। ওই সময় তাকে বেধড়ক মারধরও করা হয়েছে।

 

শিশুটিকে উদ্ধার করে রোববার রাত ১০ টার দিকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শিশুটির পাকস্থলী থেকে কীটনাশকের উপস্থিতি পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক। এর আগে রাত ৯ টার দিকে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার শঙ্করচন্দ্র ইউনিয়নের উকতো গ্রামে ওই ঘটনা ঘটে। আহত শিশু আজহারুল ইসলাম উকতো গ্রামের মাদ্রাসা পাড়ার শফি উদ্দিনের ছেলে ও স্থানীয় মাদ্রাসার হাফেজ বিভাগের ছাত্র।

 

শিশুটির বাবা শফি উদ্দিন জানান, আমার ছেলে আজহারুল গ্রামের মাদ্রাসায় পড়াশোনা করে। সে একই গ্রামের আনিছুর রহমানের খাবার হোটেলে বিভিন্ন সময় বাকীতে খাবার খায়। পরে বকেয়া পরিশোধ করে সে। রোববার রাতে অন্য একটি হোটেলে খাবার খেতে দেখে আজহারুলকে তার হোটেলে ডাকে আনিছুর। এসময় বকেয়া টাকা দাবি করে আনিছুর। তৎক্ষণাৎ টাকা না দেয়ায় তাকে বেধড়ক মারধর করে হোটেল মালিক আনিছুর। পরে আজহারুলকে জোরপূর্বক বিষ মেশানো কোমল পানীয় খাইয়ে দেয় সে। খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে পরিবারের সদস্যরা।

 

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. শাকিল আর সালান জানান, আমরা  শিশুটির পাকস্থলী পরিস্কার করেছি। ২৪ ঘন্টা পার না হওয়া পর্যন্ত শিশুটি আশঙ্কামুক্ত কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যাবে না। তাকে হাসপাতালের মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি রেখে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।এ বিষয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  মোহাম্মদ মহসীন জানান, ওই ঘটনায় থানায় এখনও কেউ অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।