পরকীয়ায় স্বামীর আত্মহত্যা,স্ত্রী কারাগারে

কুমিল্লায় যুবলীগ নেতা এমরান হোসেন মুন্নার (২৯) মৃত্যুর ঘটনায় স্ত্রী সৈয়দা সাজিয়া শারমিন উষাকে (২৮) করাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। রোববার (১৯ ডিসেম্বর) বিকেলে কুমিল্লার চিফ জুডিশিয়াল মাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সোহেল রানা তার জামিন আবেদন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

 

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লা আদালত পুলিশের পরিদর্শক মো. সালাউদ্দিন। তিনি বলেন, আদালত জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়। রোববার সন্ধ্যায়  সৈয়দা সাজিয়া শারমিন উষাকে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়।

 

চলতি বছরের ২২ সেপ্টেম্বর আত্মহত্যার আগে ওই যুবলীগ নেতা হোয়াটসঅ্যাপে তার স্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে একটি ম্যাসেজ লেখেন। ওই সময় সেই লেখাটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। সেখানে মুন্না একটি অংশে তার স্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে লেখেন, আর পাঁচটা মানুষের মতো আমার জীবন না, আমি আজ চলে যাইতেছি। মনে রাখিস তোর বেইমানি ও পরকীয়ার জন্য আত্মহত্যা করলাম আমি…।

 

এ ঘটনায় পরের দিন রাতে মুন্নার স্ত্রী উষার বিরুদ্ধে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ এনে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন নিহতের বাবা মতিউর রহমান।

 

এমরান হোসেন মুন্না কুমিল্লা নগরীর বারপাড়া এলাকার মতিউর রহমানের ছেলে। তিনি কুমিল্লা মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ছিলেন।