টাওয়ার বসানোর প্রলোভনে ২৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নিল প্রতারক চক্র

যশোরে ইন্টারনেটের টাওয়ার বসানোর কথা বলে অভিনব কায়দায় ২৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে একটি চক্র। এ ব্যাপারে চৌগাছা উপজেলার ভাদড়া গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে আব্দুল করিম মামলা দায়ের করেছেন।

 

মামলায় আসামিরা হলেন, হেদায়েতুল্লাহ মিজান, মারুফ ও শান্ত নামে তিন ব্যক্তি। মামলায় তিন আসামির মোবাইল ফোন নম্বরও উল্লেখ করেছেন বাদী। যেগুলো দিয়ে তারা বাদীর সাথে যোগাযোগ করে টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। তবে, উল্লেখিত নম্বরগুলোতে ফোন করা হলে সবগুলোই বন্ধ পাওয়া যায়।

 

মামলায় বাদী উল্লেখ করেন, তিনি দুই মাস তেইশ দিন আগে দুবাই থেকে বাড়িতে ফিরেছেন। তার বাড়িতে ভবন নির্মাণের কাজ চলাকালে ১৫ দিন আগে শান্ত নামে ব্যক্তি মোটরসাইকেলযোগে এসে ইন্টারনেট টাওয়ার বসানোর প্রস্তাব দেয়। এটা করা হলে এককালীন তাকে পাঁচ কোটি টাকা এবং প্রতিমাসে ২৫ হাজার টাকা করে ভাড়া দেয়া হবে বলে প্রলোভন দেখায় শান্ত।

 

এরপর বাদীর মোবাইল ফোনে শান্তসহ আসামিরা প্রায় টাওয়ারের বিষয় নিয়ে কথাবার্তা বলতেন। একপর্যায়ে আসামিরা তাকে জানায় পাঁচ কোটি টাকা পেতে তাকে ২৫ লাখ টাকা জমানত দিতে হবে। এ টাকা নিয়ে তাকে ২৩ ডিসেম্বর সকাল ১০টায় যশোর শহরের ধর্মতলা মোড়ে আসতে বলেন। তিনি আসামিদের কথা বিশ্বাস করে ওইদিন শহরের ধর্মতলা মোড়ে এসে তাদের হাতে ২৫ লাখ টাকা তুলে দেন। এ টাকা নিয়ে দু’জন চলে যাওয়ার পর একজন বাদীকে দড়াটানায় নিয়ে এসে দাড় করিয়ে কৌশলে সটকে পড়েন। পরে বাদী বুঝতে পারেন তিনি প্রতারণার শিকার হয়েছেন। এ বিষয়ে তিনি শুক্রবার কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করেন।