চুয়াডাঙ্গায় দেবরের লাথিতে প্রাণ গেল ভাবির

চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে দেবরের লাথিতে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (২৪ ডিসেম্বর) রাতে উপজেলার দেহাটী গ্রামের ফকির পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

 

এ ঘটনায় অভিযুক্ত দেবর সাহেব আলীকে (২৫) আটক করেছে পুলিশ। তিনি দেহাটী গ্রামের মুনতাজ শাহার ছেলে।

 

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্র জানায়, দেহাটী গ্রামের মুনতাজ শাহার ছেলে মোশাররফ হোসেনের সঙ্গে ভিটেবাড়ির জমি নিয়ে ছোট ভাই সাহেব আলীর পূর্ব বিরোধ ছিল। ওই বিরোধের জের ধরে শুক্রবার সন্ধ্যায় মোশাররফ হোসেনের স্ত্রী শাহারন খাতুনের (৩৫) সঙ্গে দেবর সাহেব আলীর কথা-কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে সাহেব আলী শাহারন খাতুনের পেটে লাথি মারেন। এতে তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে শাহারন খাতুন মারা যান।

 

জীবনগর উপজেলার শাহাপুর ফাঁড়ি পুলিশের ইনচার্জ এসআই জমির হোসেন জানান, ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়। খবর পেয়ে মরদেহ উদ্ধারসহ সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

 

জীবননগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  মো. আব্দুল খালেক জানান, শাহারন খাতুন আগে থেকেই হার্টের রোগী ছিলেন। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, এ ঘটনার পর তিনি মারা গেছেন।