বেনাপোলে ক্যাপসিকামের মধ্যে থেকে শাড়ি, থ্রি-পিছ, মাদক ও ঔষধ উদ্ধার

বেনাপোল বন্দরে আমদানিকৃত ৪৪৪ ক্যাপসিকাম কার্টনে মিথ্যা ঘোষণায় ভারত থেকে আমদানি করা বিপুল পরিমাণ শাড়ি থ্রি-পিস, শিশা ও ওষুধ আটক করেছে বেনাপোল কাস্টমস। এসময় ভারতীয় একটি ট্রাক (যার নং ডব্লিউ-বি ১১সি ৩৭৮৯) আটক করেছে কর্তৃপক্ষ।

 

রোববার বিকেল ৫টায় জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা এনএসআই সদস্যদের তথ্যের ভিত্তিতে বেনাপোল বন্দরের ৩১ নম্বর পচনশীল পণ্যের মাঠ থেকে এসব অবৈধ পণ্য চালান আটক করে কাস্টমস।

 

বেনাপোলে কর্মরত এনএসআইয়ের সহকারী পরিচালক ফরহাদ হোসেন জানান, তাদের কাছে গোপন সংবাদ আসে বেনাপোল বন্দরে সবজি জাতীয় খাদ্য ক্যাপসিকাম ঘোষণা দিয়ে একটি ভারতীয় ট্রাকে শাড়ি, থ্রি-পিস ও মাদক পাচার হচ্ছে। পরে এনএসআই সদস্যরা কাস্টমসের যুগ্ম কমিশনার-১ আব্দুর রশিদের সহযোগিতায় বন্দরে প্রবেশ করে ট্রাকটি তল্লাশি চালায়।

 

এসময় দেখা যায় কার্টনে ক্যাপসিকামের পরিবর্তে শাড়ি, থ্রি-পিস ও মাদকদ্রব্য শিশা রয়েছে। মিথ্যা ঘোষণা দিয়ে বন্দর থেকে পণ্য চালানটি ছাড় করাতে সহযোগিতা করছিল বেনাপোলের সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট স্বদেশ ট্রেডিং। পণ্যের আমদানিকারক যশোরের রসিয়াম এন্টারপ্রাইজ।

 

এদিকে স্থানীয়রা জানান, কাস্টমসের সঙ্গে হাত মিলিযে দুর্নীতিবাজ ব্যবসায়ীরা সরকারের কোটি কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে মিথ্যা ঘোষণায় পণ্য চালান ছাড় করিয়ে নিচ্ছে। এতে গত ১০ বছর ধরে বেনাপোল কাস্টমসে লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী রাজস্ব হ্রাস পাচ্ছে।

 

বেনাপোল কাস্টমস হাউজের উপ-কমিশনার আব্দুল কাইয়ুম বলেন, ভারতীয় ট্রাক থেকে ঘোষণা ছাড়াই থ্রি-পিস, মাদক ও ওষুধ উদ্ধার করা হয়েছে। গণনা শেষে জানা যায়, ১০২৪ থ্রি-পিস, শিশা ফ্লেভার ২২৪ কেজি, প্যাকিং ম্যাটারিয়াল ২৮ কেজি, ক্যাটালক ২৪ কেজি, মেডিসিন হোমিওপ্যাথি এ্যালাপ্যাথি ও ১৩৯ কেজি যৌন উত্তেজক ওষুধ জব্দ করা হয়। তদন্ত শেষে অভিযুক্ত ব্যক্তি বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে ।