দেশে ওমিক্রন ঠেকাতে বিধিনিষেধের প্রজ্ঞাপন দু-একদিনেই: স্বাস্থ্য সচিব

বিশ্বজুড়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করা করোনার ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে বাংলাদেশেও। দেশে এখন পর্যন্ত ওমিক্রনে ১০ জন শনাক্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান। ওমিক্রন নিয়ন্ত্রণে আগামী দু-একদিনের মধ্যেই বিধিনিষেধের প্রজ্ঞাপন জারি হতে পারে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য সচিব মো. লোকমান হোসেন মিঞা।

 

বুধবার (৫ জানুয়ারি) রাজধানীর জাতীয় ক্যানসার গবেষণা ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “প্রজ্ঞাপন যেকোনও সময় হতে পারে। বিধিনিষেধ নিয়ে প্রজ্ঞাপন হয়তো আজকালের মধ্যেই পেয়ে যাবেন।”

 

ওমিক্রনে আক্রান্ত কিনা জানা না গেলেও দেশে গত এক সপ্তাহ ধরেই করোনাতে শনাক্ত রোগী বাড়ছে। তারই পরিপ্রেক্ষিতে গত ৩ জানুয়ারি ওমিক্রন প্রতিরোধে এক বিশেষ আন্তমন্ত্রণালয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

 

বৈঠক শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ওমিক্রন নিয়ন্ত্রণে রাখার ব্যাপারে কিছু আলোচনা হয়েছে। স্থল ও বিমানবন্দরগুলোতে ইতোমধ্যে স্ক্রিনিং বাড়ানো এবং মজবুত করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, সেখানে অ্যান্টিজেন পরীক্ষাও চালু হয়েছে। কোয়ারেন্টিনেও আরও তাগিদ দেওয়া হয়েছে।

 

মন্ত্রী বলেন, যারা ইনফেক্টেড তাদের যথাযথ কোয়ারেন্টিনে রাখা হোক। প্রয়োজনে পুলিশ পাহারায় রাখা হোক। এবার ঢিলেঢালা কোয়ারেন্টিন আমরা চাচ্ছি না। সামাজিক, রাজনৈতিক, ধর্মীয় অনুষ্ঠানের সংখ্যা যেন সীমিত করা হয়, এ বিষয়ে তাগিদ দেওয়া হয়েছে। নীতিগতভাবে কিছুটা পজিটিভ আলোচনা হয়েছে।

 

তিনি আরও বলেন, ‘পরিবহন খাতের সিট ক্যাপাসিটি কমিয়ে যেন পরিচালনা করা হয়। সেই সঙ্গে দোকানপাট, বাস-ট্রেন-মসজিদে গেলেও মাস্ক পরতে হবে। সব জায়গায় মাস্ক পরতেই হবে। না পরলে জরিমানা করতে বলা হবে। এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আর তা পরিচালনা করা হবে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে।’

 

টিকা নেওয়ার প্রতি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ‘টিকা যারা নিয়েছেন তারা রেস্টুরেন্টে যেতে পারবেন। অফিসে যেতে পারবেন। সব করতে পারবেন, তবে মাস্ক পরা অবস্থায়। টিকা না নিয়ে থাকলে রেস্টুরেন্টে খেতে পারবেন না। সেখানে টিকার সার্টিফিকেট দেখাতে হবে। যদি এটা না মানা হয় তবে ওই রেস্টুরেন্টকে জরিমানা করা হবে।’

 

কবে থেকে এসব বাস্তবায়ন হবে জানতে চাইলে জাহিদ মালেক বলেন, ‘১৫ দিন সময় দেওয়া হবে। এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে সার্কুলার হবে।’

তবে আজ বুধবার স্বাস্থ্য সচিব জানালেন, সেই প্রজ্ঞাপন আগামী দুই থেকে একদিনের ভেতরেই আসতে পারে।