মেসিকে ছাড়া জিততে পারল না পিএসজি

করোনা থেকে মুক্ত হয়েছেন। কিন্তু শরীরের ধকল সামলে উঠার লড়াইয়ে লিওনেল মেসি যে থাকবেন না, সেটা জানা গিয়েছিল আগেই। তাকে ছাড়া খেলতে নেমে জয়ও পায়নি পিএসজি। শুরু থেকে আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে জমে উঠা ম্যাচটিতে সুযোগ তৈরি হয়েছিল অনেক। কিন্তু শেষ পর্যন্ত দুদলকেই মাঠ ছাড়তে হয়েছে ড্র করে।

 

রোববার রাতে প্রতিপক্ষের মাঠে অলিম্পিক লিওঁর বিপক্ষে লিগ ওয়ানের ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়েছে। শুরুতে লুকাস পাকেতার গোলে পিছিয়ে পড়ে পিএসজি। পরে তাদের হয়ে সমতা টানেন টিলো কেরার। গোলের উদ্দেশ্যে ১৫টি শট নেয় পিএসজি। লক্ষ্যে ছিল অবশ্য মাত্র তিনটি। লিওর ১১ শটের ৪টি লক্ষ্যে ছিল।

 

ম্যাচের ৫ম মিনিটে দারুণ এক সেভ দেন পিএসজি গোলরক্ষক কেইলর নাভাস। কিন্তু দুই মিনিট বাদেই গোল হজম করতে হয় তাকে।মাঝমাঠ থেকে সতীর্থের পাস নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে কোনাকুনি শটে গোল করেন পাকেতা।

 

২১ মিনিটে গোলের দারুণ সুযোগ পেয়েছিল পিএসজিও। কিন্তু লিয়ান্দ্রো পারেদেসের শট ঠেকিয়ে দেন লিওঁ গোলরক্ষক। তিন মিনিট পর মার্কোইনিওসের একটি দারুণ প্রচেষ্টাও আটকে দেন অ্যান্তেনিও লোপেজ।

 

বিরতির তিন মিনিট আগে ভাগ্য সহায় হয়নি পিএসজির। কর্নারের পর ফাঁকায় বল পেয়ে গিয়েছিলেন কিলিয়ান এমবাপে। কিন্তু তার শট ফিরে আসে পোস্টে লেগে। ১ গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় লিওঁ।

 

বিরতির পরপর কয়েকটি ভালো সুযোগ তৈরি করলেও লক্ষ্যে রাখতে পারছিল না পিএসজি। উল্টো ৫২ মিনিটে মুসা দেম্বেলের শট ঝাঁপিয়ে ফেরান নাভাস। আলগা বল সতীর্থের পা ঘুরে পেয়ে হুসেমের নেওয়া শট আটকে দেয় পিএসজি গোলরক্ষক।

৭৬তম মিনিটে এসে অবশেষে সমতায় ফেরে পিএসজি। ফাঁকায় বল পেয়ে টিলো কেরারের নিচু শট পা বাড়িয়ে ঠেকানোর চেষ্টা করেন লিওঁ গোলরক্ষক, উল্টো তার পায়ে লেগেই বল জড়িয়ে যায় জালে। এরপর বাকি সময়ে আর গোল হয়নি। ড্র করলেও লিগ ওয়ানে শীর্ষেই আছে পিএসজি।