চুয়াডাঙ্গায় কিশোরী নববধূর আত্মহত্যা

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলায় বিয়ের ৯ দিনের মাথায় রজনী খাতুন নামে এক কিশোরী নববধূ বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। শনিবার (২৯ জানুয়ারি) সন্ধ্যার পর সে নিজ বাড়িতে আত্মহত্যা করে।

 

রজনী খাতুন সদর উপজেলার তিতুদহ ইউনিয়নের বড়শলুয়া গ্রামের মাদরাসাপাড়ার জাহাঙ্গীর মণ্ডলের মেয়ে।

 

খবর পেয়ে দর্শনা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদেহ উদ্ধার করে। সুরতহাল প্রতিবেদন শেষে ময়নাতদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়।

 

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ৯ দিন আগে কিশোরী রজনী খাতুনের সাথে পাশের বেগমপুর ইউনিয়নের যদুপুর গ্রামের সাগর হোসাইনের বিয়ে হয়। স্বামী হিসেবে সাগর হোসাইনকে পছন্দ না হওয়ায় শ্বশুরবাড়ি যাবে না বলে নিজের পিতাকে জানিয়েছিল রজনী। শনিবার রাতে শ্বশুরবাড়িতে নিয়ে যাবার জন্য সাগরের আসার দিন ছিল। কিন্তু সন্ধ্যার পর নিজ ঘরে সকলের অগোচরে বিষপান করে রজনী।

 

দর্শনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএইচএম লুৎফুল কবীর বলেন, অল্প বয়সে বিয়ে দিয়েছিল তার পরিবার। তার স্বামীকে পছন্দ হয়নি বলে তার পিতাকে জানিয়েছিল। মূলত এই কারণে আত্মহত্যা করতে পারে। সুরতহাল প্রতিবেদন শেষে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় দর্শনা থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে।