চুয়াডাঙ্গায় সিরিজ বোমা হামলা মামলায় জেএমবি নেতা রাকিবকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

২০০৫ সালে দেশব্যাপী সিরিজ বোমা হামলা মামলায় দীর্ঘ ১৭বছর পর চুয়াডাঙ্গায় জেএমবি নেতা শায়খুল ইসলাম ওরফে রাকিবকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রদান করেছেন আদালত।

 

মঙ্গলবার (৮ফেব্রুয়ারি) দুপুরে আসামির উপস্থিতি অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালতের বিচারক লুৎফর রহমান শিশির এ রায় ঘোষণা করেন। পরে পুলিশ প্রহরায় তাকে চুয়াডাঙ্গা জেলা কারাগারে নেয়া হয়।

 

যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রাপ্ত শায়খুল ইসলাম ওরফে রাকিব বাগেরহাট জেলার মোড়লগঞ্জ উপজেলার পঞ্জকরণ গ্রামের মৃত আলতাফ হোসেনের ছেলে।

 

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট দুপুরে চুয়াডাঙ্গা জেলা শহরের কোট মোড়ে বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে সদর এসআই আব্দুল মোতালেব বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।

 

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই কামরুজ্জামান ২০০৭ সালের ৮ মার্চ দুইজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। ১৭ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে দীর্ঘ ১৭ বছর পর চুয়াডাঙ্গা অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালতের বিচারক আসামির উপস্থিতি এ রায় ঘোষণা করেন। রায়ে শায়খুল ইসলাম ওরফে রাকিবকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রদান করেন। পরে জেএমবি নেতা শায়খুল ইসলামকে পুলিশ প্রহরা চুয়াডাঙ্গা জেলা কারাগারে নেয়া হয়।

 

চুয়াডাঙ্গা অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালতের এপিপি গিয়াস উদ্দিন বলেন, রাষ্ট্র পক্ষ আসামির বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ প্রমাণ করতে সমর্থ হয়। বিজ্ঞ বিচারক জেএমবি নেতাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রদান করেছেন। এ রায়ে আমরা খুশি।