ঝিনাইদহে প্রকাশ্যে ধর্ষণের পর মধ্যবয়সী নারীকে হত্যা

ঝিনাইদহ সদর উপজেলার পোড়াহাটী গ্রামে বৃহস্পতিবার প্রকাশ্যে এক মধ্যবয়সী নারীকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। নিহত নারীর নাম বিবিজান নেছা (৫০)। তিনি পোড়াহাটী গ্রামের আনু মিয়ার স্ত্রী।

 

এ ঘটনায় একাবাসি ঘাতক ইয়াদ আলী (৪৫) নামে এক ব্যক্তিকে হাতেনাতে আটক করে ঝিনাইদহ র‌্যাব-৬ এর কাছে সোপর্দ করেছে। পোড়াহাটী গ্রামের আফজাল হোসেন জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে তার চাচি বিবিজান নেছা গ্রামের একটি পুকুর পাড়ে ছাগলের জন্য পাতা কাটতে যায়। এ সময় নড়াইল সদর উপজেলার বিল ডুমুরপাড়া গ্রামের চাঁদ মোল্লার ছেলে ইয়াদ আলী একা পেয়ে তাকে ধর্ষণ করে এবং দুই হাত ভেঙ্গে দেয়। বিবিজান নেছার মুখমন্ডল থেতলে রক্তাক্ত করা হয়।

 

দিনে দুপুরে ঘটনাস্থলে উপস্থিত লোকজন এই নৃশংস ঘটনা দেখতে পেয়ে ধর্ষক ইয়াদ আলীকে আটক করে র‌্যাবের হাতে সোপর্দ করে। এদিকে মুমুর্ষ অবস্থায় বিবিজান নেছাকে প্রথমে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল ও পরে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে মাগুরায় মারা যান।

 

আফজাল হোসেন দাবী করেন,তার চাচির কাপড় ও শরীরের বিভিন্ন অংশে যে আলামত পাওয়া গেছে তাতে তাকে ধর্ষণের পর নৃশংস ভাবে নির্যাতন করা হয়েছে।

 

ঝিনাইদহ সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল বাশার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, ইয়াদ আলীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। সে ভিন্ন ভিন্ন তথ্য দিচ্ছে। তাকে কিছুটা অপ্রকৃতিস্থ ও মাদকাসক্ত বলে মনে হচ্ছে।