ঝিনাইদহে অপহৃত কলেজ ছাত্রী প্রমিকে উদ্ধারের দাবীতে বিক্ষোভ-সমাবেশ

ঝিনাইদহ জেলা শহরের আরাপপুর এলাকার নিউ একাডেমি স্কুলের সামনে থেকে সরকারি কেসি কলেজের একাদশ শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী আনিকা আশরাফ প্রমিকে অপহরণ করার প্রতিবাদ ও উদ্ধারের দাবীতে ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করছেন তার সহপাঠীরা।

 

অপহৃত ওই ছাত্রীর সন্ধান ও উদ্ধারের দাবিতে সকাল সাড়ে দশটা থেকে তাঁরা সেখানে অবস্থান নেয়। অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, অপহৃত ওই ছাত্রীকে অপহরণ করার ১২ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও প্রশাসন এখনো প্রমির সন্ধান জানাতে পারেনি।
রোববার সকালে শহরের সরকারী কেসি কলেজ থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে শিক্ষার্থীরা। মিছিলটি শহরের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে অবস্থান করে ঘন্টা ব্যাপী বিভিন্ন শ্লোগান দিয়ে বিক্ষোভ করতে থাকে ছাত্রীরা।

 

প্রমির পিতা আশরাফুদ্দৌলা খোকন জানান, শনিবার বিকেলে প্রমি কোচিং সেন্টার থেকে বাড়ি ফিরছিল। এ সময় শহরের নিউ একাডেমি স্কুলের সামনে পৌঁছুলে আগে থেকে সেখানে ওৎ পেতে থাকা শৈলকুপা উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক আবুজার গিফারী গাফফারসহ আরও কয়েকজন প্রমিকে জোরর্পূবক মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যায়। সে সময় প্রমি চিৎকার করলেও কেউ তাকে উদ্ধারে এগিয়ে আসেনি। আমি এখনো জানি না আমার মেয়ে কোথায়, কী অবস্থায় আছে। প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে আমার অনুরোধ, আমার মেয়ে যেন অক্ষতভাবে ফিরে আসে। আপনারা সহযোগিতা করেন, মেয়েটাকে যেন জীবিত পাই, যেন উধাও না হয়ে যায়।’আমি আমার মেয়েকে ফেরত চাই।

সানজানা ইসলাম ওহি নামের এক সহপাঠী বলেন, প্রমি খুবই মেধাবী ছাত্রী। তার চলাফেরা খুব ভালো। আমার সহপাঠীকে যে সন্ত্রাসী অপরহরণ করেছে আমরা তার গ্রেফতারের দাবী জানাচ্ছি। তার যেন কোন ক্ষতি না হয় আমরা তার উদ্ধার ও দোষীদের শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

 

ঘন্টাব্যাপী চলা এই কর্মসূচীতে শিক্ষার্থীরা প্রমিকে উদ্ধার ও জড়িতদের গ্রেফতারের দাবী জানান। পরে পুলিশ ও প্রশাসনের আশ্বাসে তারা কর্মসূচী প্রত্যাহার করে।
এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ মোহাম্মদ সোহেল রানা বলেন, অপহরণের ঘটনায় থানায় একটি মামলা হয়েছে। আমরা তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে তাকে উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছি।