বেনাপোলে ওয়ার্ড কাউন্সিলর অবৈধ অস্ত্র ও গুলিসহ গ্রেফতার

যশোর জেলা পুলিশ সুপার জনাব প্রলয় কুমার জোয়ারদার, বিপিএম (বার), পিপিএমের দিক-নির্দেশনায় ওসি ডিবি রুপন কুমার সরকার এর নেতৃত্বে জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)শাখার নেতৃত্বে ইং ০১/০৪/২০২২ তারিখে জেলা গোয়েন্দা শাখার এসআই শাহিনুর রহমান এর অভিযানে একটি চৌকশ টিম বেনাপোল পোর্ট থানা এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনাকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বেনাপোল পোর্ট থানার মামলা নং- ৩৮(০৩)২০২২ এর পলাতক আসামী কাউন্সিলর রাশেদ আলীকে ঝিকরগাছা থানাধীন গদখালী সুধীর আলী সাকিনে অভিযান পরিচালনা করে আটক করা হয়।

 

ইং ০২/০৪/২০২২ তারিখ রাত ০৪:৩০ ঘটিকার সময় গ্রেফতার করে তার স্বীকারোক্তি মতে তার হেফাজতে থাকা অবৈধ অস্ত্রগুলি উদ্ধারের লক্ষ্যে একই দিন ভোর ০৫:৪৫ ঘটিকার সময় বেনাপোল পোর্ট থানাধীন ভবেরবেড় এলাকার রজনী ক্লিনিকের পূর্বপার্শ্বে জনৈক আক্তারের পরিত্যক্ত বসতবাড়ীর ভিতরে মাটিতে পোতা অবস্থায় দেখানো স্থান হতে গ্রেফতারকৃত কাউন্সিলর তার নিজ হাতে বাহির করে দেওয়া মতে ০৫ রাউন্ডগুলি ভর্তি ১টি ম্যাগাজিনসহ ০১(এক)টি বিদেশী পিস্তল ও ০১(এক)টি দেশীয় তৈরী ওয়ান শুটারগান, ০৪ রাউন্ড রাইফেলের গুলি পলিথিন দ্বারা মোড়ানো অবস্থায় উদ্ধার পূর্বক জব্দ করা হয়।

 

এই সংক্রান্তে এসআই শাহিনুর রহমান বাদী হয়ে এজাহার দায়ের করলে বেনাপোল পোর্ট থানার মামলা ০৩, তাং-০২/০৪/২০২২ ইং, ধারা-১৮৭৮ সনের অস্ত্র আইনের ১৯এ(১৯(এফ) রুজু করা হয়।

 

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, দীর্ঘদিন যাবৎ উদ্ধারকৃত অস্ত্রগুলি ছাড়াও একাধিক অবৈধ অস্ত্রগুলি তার হেফাজতে রেখে বিভিন্ন অপরাধমুলক কর্মকান্ড এবং এলাকায় আধিপত্য বিস্তারের লক্ষ্যে এলাকায় শক্তি মহোড়া দিয়ে আসছিল।

 

এরই ধারাবাহিকতায় ইং ২৮/০৩/২০২২ তারিখে ধৃত আসামী কাউন্সিলরের নেতৃত্বে একটি গ্রুপ বেনাপোল বন্দরে প্রকাশ্য দিবালোকে ককটেল বিস্ফোরণসহ অবৈধ অস্ত্রগুলি দ্বারা গুলি বিস্ফোরণ ঘটায় মর্মে তথ্য প্রমান পাওয়া যায়। আরো ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের নিমিত্তে পুলিশ রিমান্ডের আবেদনসহ ধৃত আসামীকে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হইয়াছে।