মণিরামপুরে পুত্রবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে শ্বশুর আটক

যশোর জেলার মণিরামপুর উপজেলায় পুত্রবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে শ্বশুর হাফিজুর রহমানকে আটক করেছে পুলিশ। আটক হাফিজুর রহমান একই উপজেলার নেহালপুর গ্রামের কালীবাড়ি মেঠোপাড়ার গোলাম আলীর ছেলে।এই ঘটনায় মণিরামপুর থানায় মামলা হয়েছে

 

কেশবপুর উপজেলার মনোহরনগর গ্রামের মেয়ের বাবা রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে মণিরামপুর থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং : ১৪। মেয়ের বাবা বলেন, সাত মাস আগে আসামি হাফিজুর রহমানের ছেলে ট্রাকের হেলপার রায়হানের সাথে তার মেয়ের বিয়ে হয় । জামাই পেশাগত কাজের জন্য রায়হান প্রায়ই বাড়ির বাইরে থাকে। সেই সুযোগে রায়হানের পিতা হাফিজুর রহমানের কুদৃষ্টি পড়ে আমার মেয়ের উপর। বিভিন্ন সময় কুপ্রস্তাব দেয়াসহ ঘরে একা পেয়ে আমার মেয়েকে একাধিকবার ধর্ষণ করে তার শ্বশুর হাফিজুর রহমান।

 

সর্বশেষ গত ১৩ এপ্রিল ভোর ৪টার দিকে ঘুম থেকে উঠে সেহরি খাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিল আমার মেয়ে। এসময় তার শ্বশুর হাফিজুর রহমান ঘরের মধ্যে প্রবেশ করে দরজার বন্ধ করে দেয় ও জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। এসময় চিৎকার করতে গেলে তাকে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়। পাশাপাশি বিষয়টি কাউকে জানানো হলেও তাকে খুন করার হুমকি দেয়া হয়েছে।

খবর পেয়ে পরদিন ( ১৪ এপ্রিল) রাত আনুমানিক সাড়ে আটটার দিকে হাফিজুর রহমানের বাড়ি থেকে মেয়েটিকে উদ্ধার করে মণিরামপুর থানায় মামলা করা হয়।

 

পুলিশ শুক্রবার রাত আনুমানিক নয়টায় নেহালপুর-কালীবাড়ির ইসলাম মোড় থেকে হাফিজুর রহমানকে পুলিশ আটক করেন।

 

এ ব্যাপারে নেহালপুর পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ আতিকুজ্জামান জানান আটকের পর শনিবার যশোর জুডিসিয়াল মস্যাজিস্ট্রেট আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।