মন্দিরে কোরআন রেখে পালানোর সময় আটক ইদ্রিস

পটুয়াখালীর বাউফলে মন্দিরে পবিত্র কোরআন শরিফ রাখার সময় ইদ্রিস খান নামে এক ব্যক্তি আটক হয়েছেন। তার বিরুদ্ধে ধর্ম অবমাননার মামলা হয়েছে।

 

৪৫ বছর বয়স্ক ইদ্রিস খানের গ্রামের বাড়ি বরিশালের বাকেরগঞ্জের শাপলাখালি ইউনিয়নে। তবে তিনি পটুয়াখালীর দুমকীর জলিসা এলাকায় বসবাস করেন।

 

এতথ্য নিশ্চিত করেছেন বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আল মামুন।

 

স্থানীয়দের বরাতে তিনি বলেন, বগা ইউনিয়নের উত্তর রাজনগর-পালপাড়া সর্বজনীন কালী মন্দিরে ভোরে পবিত্র কোরআন শরিফ রাখার অভিযোগে তাকে আটক করেন এলাকাবাসী। এরপর পুলিশ তাকে থানায় নিয়ে আসে। তার বিরুদ্ধে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে মামলাও করে পুলিশ।

 

ওসি জানান, কী কারণে ইদ্রিস মন্দিরে গিয়েছিল তা তদন্ত করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত ইদ্রিসের কোনো রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়নি।

 

এলাকায় অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলেও জানান ওসি।

 

গত বছর দুর্গাপূজায় সারা দেশে উৎসবমুখর পরিবেশের মধ্যে ১৩ অক্টোবর ভোরে কুমিল্লার একটি মণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ পাওয়া যায়। এর জেরে দেশের বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে পড়ে সহিংসতা। পরে মন্দিরে কোরআন রাখার অভিযোগে ইকবাল নামে এক যুবক শনাক্ত হন। ইকবাল এখন কারাগারে আছেন।