ভারতে পাচার শিশুসহ ৭ বাংলাদেশিকে বেনাপোলে হস্তান্তর

ভালো কাজের প্রলোভনে ভারতে পাচারের শিকার শিশুসহ ৭ বাংলাদেশিকে বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে ভারতীয় পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২৮ এপ্রিল) সন্ধ্যায় ৫ জন ও শুক্রবার (২৯ এপ্রিল) এক শিশু ও তার মাসহ মোট ৭ জনকে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে হস্তান্তর করা হয়।

 

ফেরত আসারা হলেন-চুয়াডাঙ্গার জীবননগরের শফিকুল ইসলামের মেয়ে রুপা খাতুন (২৯), ফরিদপুরের নগরকান্দার হাবিবুর রহমানের মেয়ে রেশমা খাতুন (৩৬), একই জেলার বোয়ালমারী এলাকার মিলনের মেয়ে সাগরিকা বৃষ্টি (৪০), চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি এলাকার তোফাজ্জেল আহমেদের মেয়ে বেনু আরা বেগম (৩৮), রাজবাড়ীর হোসনাবাদের মনির হোসেনের মেয়ে লিপি আক্তার (২৭), নড়াইলের আরিফ খানের মেয়ে চুকমি খানম (২৬) ও তার সাত মাসের শিশু সন্তান আলামিন শালমান শেখ।

 

ইমিগ্রশন পুলিশ সূত্র জানায়, ভালো কাজের প্রলোভন দেখিয়ে দালালরা দেশের বিভিন্ন সীমান্তের অবৈধ পথে তিন বছর আগে তাদের ভারতের মহারাষ্ট্রে নিয়ে বিভিন্ন কাজে লাগান। এ সময় অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগে ভারতীয় পুলিশ তাদের আটক করে কারাগারে পাঠায়। পরে কারাগার থেকে একটি মানবাধিকার সংস্থার শেল্টার হোমে ঠাঁই হয় তাদের। পরে বাংলাদেশ সরকারের সহযোগিতায় বিশেষ ট্রাভেল পারমিটে তারা দেশে ফেরার সুযোগ পান।

 

বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ রাজু জানান, দুদিনে এক শিশুসহ সাত বাংলাদেশিকে হস্তান্তর করেছে ভারতীয় পুলিশ। পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিতে একটি এনজিও তাদের গ্রহণ করেছে।

 

এনজিও যশোর জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ারের এরিয়া ম্যানেজার আব্দুল মুহিত বলেন, ফেরত আসাদের গ্রহণ করে যশোরের নিজস্ব শেল্টার হোমে নিয়ে রাখা হবে। পরে পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদের কাছে হস্তান্তর করা হবে।