ঝিনাইদহে গাঁজাসহ আসামি আটকের সময় পুলিশের ওপর হামলা, আহত ১০

আহত চার পুলিশ সদস্য

ঝিনাইদহের মধুপুর চৌরাস্তা মোড়ে গাঁজাসহ আসামি আটকের সময় পুলিশের ওপর হামলা চালিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দা ও দোকানিরা। এসময় উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে ৫ পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। শুক্রবার (৬ মে) সন্ধ্যা ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

 

আহতদের মধ্যে এএসআই আনোয়ারুল ইসলাম, এএসআই আশরাফুল, কনস্টেবল আশরাফুজ্জামান ও এলেম শেখকে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত অপর কনস্টেবল জামালকে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এদিকে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ১৫ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

 

জানা গেছে, সন্ধ্যায় মধুপুর চৌরাস্তা বাজারের পাশে একটি চায়ের দোকানে টেবিলের নিচে ৩০০ গ্রাম গাঁজা পাওয়া যায়। এসময় চা দোকানি আকিদুল ইসলামকে আটক করে গাড়িতে তুলতে যায় পুলিশ। পরে বাজারের লোকজন ও অন্য দোকানিরা তাদের বাধা দেন। একপর্যায়ে তারা আসাীমদের ছিনিয়ে নেন। তখন পুলিশের সঙ্গে তাদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। একপর্যায়ে স্থানীয়দের ছোড়া ইটের আঘাতে দুই এএসআইসহ ৫ পুলিশ সদস্য আহত হন। স্থানীয়দের মধ্যেও কয়েকজন আহত হন।

 

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ঝিনাইদহ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মোহাম্মদ সোহেল রানা বলেন, অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ৫ রাউন্ড শর্টগানের গুলি বর্ষণ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয় ও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

 

তিনি আরও বলেন, পুলিশের কাজে বাধা দেওয়ার ঘটনায় অবশ্যই জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. আশরাফুজ্জামান সজীব বলেন, হাসপাতালে আনা পুলিশ সদস্যদের হাতে-পায়েসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ইটের ও লাঠির আঘাত রয়েছে। তবে তা গুরুতর নয়।