মোংলায় ইউপি মেম্বার জাহাঙ্গীর মল্লিকের বিরুদ্ধে গ্রামবাসীর মানববন্ধন (ভিডিও)

মোংলায় ইউপি মেম্বার জাহাঙ্গীর মল্লিকের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছেন ভুক্তভোগী হিন্দু, মুসলিম এবং খ্রিস্টান পরিবারের বিভিন্ন বয়সের লোকজন। মেম্বার জাহাঙ্গীরের অত্যাচার-নির্যাতন থেকে পরিত্রাণ পেতে ও তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে রবিবার সকালে এ মানববন্ধন করেন মালগাজী গ্রামবাসী।

 

সকাল ১০ টায় উপজেলার চাঁদপাই ইউনিয়নের চৌকিদার মোড়ে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে ভুক্তভোগী কোহিনুর বেগম বলেন, জাহাঙ্গীর মেম্বার আমার জমিজমা দখল ও জমি থেকে বেআইনিভাবে বালু উত্তোলন করে ৫০ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছেন। এসবের প্রতিবাদ করলে সে তার বাহিনী নিয়ে আমাদের মারধরসহ হত্যার হুমকি দিয়ে আসছেন। আমরা অসহায় গ্রামবাসী মেম্বার জাহাঙ্গীরের প্যানেল চেয়ারম্যান পদ থেকে অপসারণসহ তার নানা অপকর্মের বিচারের দাবী জানাচ্ছি।

 

ভুক্তভোগী মারিয়া সরকার বলেন, আমাকে মিথ্যা বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে আমাকে নির্যাতনসহ আমার ১০ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছেন ইউপি মেম্বর জাহাঙ্গীর। তার বিরুদ্ধে বর্তমানে একটি ধর্ষণ মামলাও রয়েছে। আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছে মেম্বার জাহাঙ্গীরের সকল অপকর্মে বিচারের দাবী জানাচ্ছি।

 

উপজেলার চাঁদপাই ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হোসেন বলেন, জাহাঙ্গীর মেম্বারের বাবা সাত্তার মল্লিক একজন রাজাকার ও যুদ্ধাপরাধী ছিলেন। সেই যুদ্ধাপরাধীর ছেলে জাহাঙ্গীর মেম্বরও পাকিস্তানী দোসরদের মতই নির্যাতন চালাচ্ছেন মালগাজী গ্রাম জুড়ে। তার নির্যাতনে গ্রামের সাধারণ লোকজন অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন। নব্য আওয়ামী লীগ জাহাঙ্গীর মেম্বারের দলীয় পদ থেকে বহিষ্কারের জন্য উর্ধতন নেতৃবৃন্দের প্রতি দাবী জানাচ্ছি। মেম্বারের ষড়যন্ত্রে প্রায় ২ কোটি টাকার জমি খুইয়ে সর্বশাম্ত হয়ে পড়া ভুক্তভোগী জমির মালিক নরোত্তম বিশ্বাস মানববন্ধনে বলেন, ক্ষমতার দাপটে আমার বাবা কৃষ্ণপদ বিশ্বাসকে কব্জায় নিয়ে আমার নিজ ও আমার ছোট ভাই প্রেমানন্দ বিশ্বাসের দলিল নামীয় জমি জবর দখল এবং বিক্রি করে ২ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছেন জাহাঙ্গীর মেম্বার। আমি আমাদের দুই ভাইয়ের জমি ফেরতসহ তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

জাহাঙ্গীর মল্লিক উপজেলার চাঁদপাই ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও একই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য।

 

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার বলেন, ইউপি মেম্বার জাহাঙ্গীর মল্লিকের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগের তদন্তে সত্যতা পেলে তার মেম্বার পদের বিষয়েও সংশ্লিষ্ট উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হবে।