আলমডাঙ্গায় কালবৈশাখীর তাণ্ডব: সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা পর ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় কালবৈশাখী ঝড়ের তাণ্ডবে রেললাইনের ওপর গাছ পড়ে সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা পর আবার তা স্বাভাবিক হয়েছে।

 

জানা গেছে, কালবৈশাখী ঝড়ের তাণ্ডবে শনিবার (২১ মে) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে আলমডাঙ্গা-হালসার মাঝে রেললাইনের ওপর গাছ পড়ে। পরে বেলা ১১টার দিকে ভেঙে পড়া গাছ অপসারণ করলে সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা পর ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

 

আলমডাঙ্গার স্টেশন মাস্টার নাজমুল হুসাইন বলেন, আলমডাঙ্গায় শনিবার ভোরে হঠাৎ ঝড়-বৃষ্টি শুরু হয়। এতে আলমডাঙ্গা-হালসার মাঝে রেললাইনের ওপর অনেক গাছ উপড়ে পড়ে। তখন থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় সারাদেশের সঙ্গে খুলনার ট্রেন চলাচল। ওই সময় আলমডাঙ্গা স্টেশনে নকশীকাঁথা এক্সপ্রেস ও কিছু দূরে কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস দাঁড়িয়ে ছিল। কুষ্টিয়ার হালসা স্টেশনে দাঁড়িয়ে ছিল বেনাপোল এক্সপ্রেস ও পোড়াদহ স্টেশনে দাঁড়িয়েছিল সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস।

 

তিনি আরও বলেন, ভেঙে পড়া গাছ অপসারণ করলে বেলা ১১টার দিকে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

 

এর আগে , ভোরে আলমডাঙ্গা উপজলোয় আধাঘণ্টার ও বশেি সময় ধরে কালবৈশাখী ঝড়ে হারদি ও ডাউকি ইউনিয়নের কিছু অংশসহ কুমারি ও কালিদাসপুর ইউনিয়নের কয়েকশ বাড়ঘিররে চালা উড়ে যায়। বদ্যিুতরে খুঁটসিহ উঠতি ফসল ধান, পান বরজে ব্যাপক ক্ষতগ্রিস্ত হয়।

আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম জানান,২১মে শনিবার সকালে আলমডাঙ্গায় কালবৈশাখী ঝড়ের তান্ডব চলে ।

 

এতে উপজেলার হারদি ও ডাউকি ইউনিয়নের কিছু অংশসহ কুমারি ও কালিদাসপুর ইউনিয়নের কয়েকশ বাড়িঘরের টিনের চালা উড়ে যায়। বিদ্যুতের খুঁটি,গাছপালা ভেঙ্গে রেললাইনও রাস্তার উপর পড়ে । এতে বাস ও রেলচলাচল বন্ধ হয়ে যায় । বেলা ১১টার দিকে সেটা স্বাভাবিক হয় ।

 

তবে আহত হওয়ার সংখ্যাটা এখনও নিরুপন করা সম্ভব হয়নি।