ঝিনাইদহ পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর প্রার্থিতা বাতিল

আচরণবিধি ভঙ্গের দায়ে ঝিনাইদহ পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. আব্দুল খালেকের প্রার্থিতা বাতিল করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। বৃহস্পতিবার নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের উপ-সচিব (নির্বাচন প্রশাসন) মো. মিজানুর রহমান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।

 

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, আগামী ১৫ জুন ঝিনাইদহ পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী মো. আব্দুল খালেক ও তার সমর্থকরা নির্বাচন বিধি লঙ্ঘন করেছেন। গত ১৮ মে মিছিল-শোভাযাত্রা করে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মো. কাইয়ুম শাহরিয়ার জাহেদীর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভাঙচুর করার অভিযোগ আসে তাদের বিরুদ্ধে।

 

এ ঘটনায় আব্দুল খালেকের বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের ব্যাখ্যা চাওয়ার পর তিনি ক্ষমা প্রার্থনা করেন এবং ভবিষ্যতে নির্বাচনী আচরণ বিধিমালা মেনে চলবেন বলে অঙ্গীকার করেন। এরপরও আব্দুল খালেকের সমর্থকরা বুধবার (১ জুন) অপর প্রার্থী কাইয়ুম শাহরিয়ার জাহেদী ও তার সমর্থকদের আক্রমণ করে আহত করেন।

 

 

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, উল্লেখিত কার্যক্রমে পৌরসভা বিধিমালা, ২০১৫ এর লঙ্ঘন একাধিকবার হয়েছে। এসব ঘটনা তদন্তের মাধ্যমে প্রমাণিত হয়েছে। যেহেতু প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হিসেবে পৌরসভা (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা, ২০১৫ এর বিধান লঙ্ঘন করেছেন। তাই পৌরসভা বিধিমালা, ২০১৫ এর বিধি ৩২ অনুসারে নির্বাচন কমিশন ঝিনাইদহ পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী মো. আব্দুল খালেকের প্রার্থিতা বাতিল করলো।

 

এদিকে, খালেকের প্রার্থিতা বাতিল হওয়ায় বর্তমানে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় থাকলেন নারিকেল গাছ প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী কাইয়ুম শাহরিয়ার জাহেদী হিজল, মোবাইল প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী মিজানুর রহমান মাসুম ও হাত পাখা নিয়ে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম।